ইরান-যুক্তরাষ্ট্রের সমর্থকদের মাঝে নেই রাজনৈতিক বৈরিতার ছাপ

|

গ্রুপ পর্বে নিজেদের শেষ ম্যাচে চির প্রতিদ্বন্দ্বী যুক্তরাষ্ট্রের কাছে হেরে বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিয়েছে এশিয়ার ফুটবল পাওয়ার হাউস ইরান। উত্তেজনাকর এ ম্যাচের আগে খেলার বাইরের বেশ কিছু বিষয় এসেছে আলোচনায়। তার মধ্যে অন্যতম ছিল- যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে ইরানের পতাকা বিকৃতির অভিযোগ। এ ম্যাচে ১-০ ব্যবধানে হেরে বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিশ্চিত হয়েছে ইরানের। তবে, ম্যাচ শেষে দুদলের সমর্থকদের দেখা গেছে আনন্দিতভঙ্গীতে সেলফি তুলতে, অভিনন্দন ও স্বান্তনা দিতে।

ম্যাচ শেষে দেখা গেছে, অধিকাংশ সমর্থকই নিরাপদে ও শান্তিপূর্ণভাবে বের হয়েছেন স্টেডিয়াম থেকে। অধিকাংশ ইরান সমর্থক ঘরের পথে রওনা হলেও যুক্তরাষ্ট্রের সমর্থকদের দেখা গেছে ফিফা মিউজিক লাউঞ্জে মিউজিক উপভোগ করতে। যাওয়ার আগে ইরান সমর্থকদের দেখা গেছে যুক্তরাষ্ট্রের সমর্থকদের সাথে সেলফি তুলতে ও অভিনন্দন জানাতে। এ সময় কোনোপক্ষের মধ্যেই কোনো ধরনের সহিংস মনোভাব দেখা যায়নি।

এর আগে, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ইরানের পতাকা বিকৃত করে প্রকাশ করে যুক্তরাষ্ট্র ফুটবল ফেডারেশন। সেখানে গ্রুপ বি’র পয়েন্ট টেবিলে ইরানের পতাকায় ইসলামিক রিপাবলিকের চিহ্ন বাদ দেয়া হয়েছিল। কেবল পতাকার লাল, সাদা এবং সবুজ অংশটিই স্থান পায় সেখানে। ইরানে চলমান নারী অধিকার আন্দোলনে সমর্থন দিয়েই এমন পরিবর্তন আনা হয়েছে বলে জানায় যুক্তরাষ্ট্র ফুটবল ফেডারেশন।

ফলশ্রুতিতে, ফিফার কাছে যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্বে পতাকা অবমাননার অভিযোগ করে ইরানের ফুটবল ফেডারেশন। এমনকি যুক্তরাষ্ট্রকে কাতার বিশ্বকাপ থেকে নিষিদ্ধের দাবিও জানায় তারা। ব্যাপারটি এতোদূর গড়ায় যে, পরবর্তীতে ক্ষমা চেয়ে নেন যুক্তরাষ্ট্র দলের হেড কোচ গ্রেগ বেরহাল্টার। 

/এসএইচ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply