মেহেরপুরের গাংনীতে বোমা সদৃশ বস্তুর বিস্ফোরণ, বিএনপি-ছাত্রলীগের পাল্টাপাল্টি অভিযোগ

|

উদ্ধারকৃত আরও তিনটি বোমা সদৃশ বস্তু প্রাথমিকভাবে নিষ্ক্রিয় করেছে পুলিশ।

মেহেরপুর প্রতিনিধি:

মেহেরপুরের গাংনী শহরে বোমা সদৃশ বস্তুর বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় অবিস্ফোরিত অবস্থায় আরও তিনটি বোমা সদৃশ বস্তু উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় বিএনপি নেতাকর্মীদের দায়ী করে তাদের গ্রেফতারের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে ছাত্রলীগ। তবে বিএনপি নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ আনা হয়েছে বলে দাবি দলটির নেতাকর্মীদের। তবে এ ঘটনায় কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

সোমবার (২৮ নভেম্বর) রাত সাড়ে আটটার দিকে এ ঘটনা ঘটে। গাংনী থানা ভারপ্রাপ্ত কমকর্তা (ওসি) আব্দুর রাজ্জাক জানান, গাংনী উত্তরপাড়ায় অবস্থিত সরকারি পরিত্যক্ত একটি মাছের হ্যাচারির পাশে বিস্ফোরণের খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে যায়। এসময় একটি ব্যাগ থেকে ৩টি বোমা সদৃশ বস্তু উদ্ধার করা হয়। তবে শব্দ পাওয়া গেলেও ঘটনাস্থলে বিস্ফোরণের কোনো আলামত পাওয়া যায়নি বলে জানান তিনি।

এদিকে, এ ঘটনায় বিএনপি নেতাকর্মীদের দায়ী করে শহরে বিক্ষোভ মিছিল করেছে ছাত্রলীগ। এ নিয়ে সাবেক ছাত্রনেতা সাহিদুজ্জামান সিপু বলেন, আওয়ামী লীগের জাতীয় কাউন্সিল উপলক্ষে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা রাতে গাংনী শহরে একটি মিছিল বের করে। বাসস্ট্যান্ড এলাকায় মিছিলটি পৌঁছলে বিএনপি নেতাকর্মীরা তাদের ওপর হামলা করে। ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা হামলা প্রতিরোধ করলে তাদের লক্ষ্য করে দুটি ককটেল নিক্ষেপ করা হয়। ককটেল দুটি বিস্ফোরিত হয়। হামলাকারী বিএনপি নেতাকর্মীদের দ্রুত গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনার দাবি করেন তিনি।

অপরদিকে, ছাত্রলীগের অভিযোগ মিথ্যা দাবি করে গাংনী উপজেলা বিএনপি সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান বাবলু বলেন, বিএনপি নেতা এডাম ও জামাল বাজার থেকে বাড়ি যাওয়ার সময় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের কয়েকজন তাদের ধাওয়া করে। তবে তারা পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। অথচ উল্টো বিএনপি নেতাকর্মীদের নামেই মিথ্যা অভিযোগ করা হচ্ছে। এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান তিনি।

এ বিষয়ে গাংনী থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রাজ্জাক জানান, অবিস্ফোরিত তিনটি বোমা সদৃশ বস্তু প্রাথমিকভাবে নিষ্ক্রিয় করে থানা হেফাজতে নেয়া হয়েছে। জড়িতদের বিরুদ্ধে তদন্ত সাপেক্ষে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান তিনি।

এসজেড/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply