স্প্যানিশদের টিকিটাকা ফুটবলের পুনরাবৃত্তি

|

ছবি: সংগৃহীত

স্পেনের ফুটবল মানেই একসময় ধরে নেয়া হতো টিকিটাকা। মাঝে গেল কয়েক বছর কিছুটা ছন্দ হারায় পুরনো এই টেকনিক। কিন্তু এবার সেই স্প্যানিশরাই আবারও যেন বিশ্বকাপের মঞ্চে ফিরিয়ে এনেছেন টিকিটাকার ছন্দময় গতি।

ইয়োহান ক্রুইফ, ভিসেন্তে দেল বস্কে, বা পেপ গার্দিওলা- স্বনামে খ্যাত এই কোচেরা জনপ্রিয়তার শীর্ষে নিয়েছিলেন ছোট ছোট পাসে খেলার ফর্মুলা টিকিটাকাকে। মাঠে যেটি সুনিপুণভাবে করেও দেখিয়েছেন লিওনেল মেসি-আন্দ্রেস ইনিয়েস্তা-ডেভিড ভিয়ারা।

বুধবার কাতারের বুকে আবারও দেখা গেল সেই ছন্দময় টিকিটাকা। কোস্টারিকার জালে স্পেনের সাত-সাতটি গোল। আরেকটু হলে যা ১০-০ ও হতে পারতো। পেদ্রি-ফেরান তোরেসদের বদলি করা না হলে এমন ব্যবধানই হয়তো হতো।

পুরো ম্যাচজুড়েই ছিল টিকিটাকার আবহ। স্পেনের ফুটবলাররা পুরো ম্যাচে দিয়েছে ১০৫৬টি পাস। এরমধ্যে পাস সম্পূর্ণ হয়েছে ৯৯৪টি। গোলঅভিমুখী শট ছিল ১৭টি। যারমধ্যে গোলও হয়েছে ৭টা। পুরো সময়টার ৭১ শতাংশই বল ছিল স্পেনের দখলে। সে ম্যাচে যে কোস্টারিকা খাবি খেয়েছে, সেটি আর বলার অপেক্ষা রাখে?

তারুণ্যনির্ভর এই দলটির গতির সাথে ছন্দের এই মেলবন্ধন করে দিল কে? কোনো দ্বিধা না রেখেই বলে দেয়া যায়, উত্তরটি কোচ লুই এনরিকে। ৫২ বছর বয়সী এই স্প্যানিশ নিজেই যেন ছন্দের জাদু জানেন। খেলোয়াড়ি জীবনে রিয়াল মাদ্রিদ ও বার্সেলোনার হয়ে জিতেছেন লা লিগা। সেই যাদুই অ্যাসেনসিও-তোরেসদের মতো শিষ্যদের শিখিয়ে-পড়িয়ে বিশ্বকাপের মঞ্চে এনেছেন লুইস এনরিকে।

/আরআইএম





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply