ফ্রেডি না থাকার ৩১ বছর আজ

|

ফ্রেডি মার্কারি (১৯৪৬-১৯৯১)

রক সংগীত জগতের এক অসাধারণ তারকা ফ্রেডি মার্কারি। তিনি ছিলেন একাধারে চিত্রশিল্পী, গীতিকার, সুরকার, ও গায়ক। রক ঘরানা ছাড়াও হেভি মেটাল, গসপেল, ডিস্কো এবং আরও বহু ধারায় গান গেয়েছেন তিনি। ৭০ ও ৮০’র দশকে ‘কুইন’ ব্যান্ডের হয়ে বিশ্বজুড়ে পেয়েছিলেন ব্যাপক জনপ্রিয়তা। বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী এ তারকার ৩১তম প্রয়াণ দিবস আজ।

১৯৪৬ সালের ৫ সেপ্টেম্বর, পূর্ব আফ্রিকার জাঞ্জিবারে, ভারতীয় এক পার্সি পরিবারে জন্ম তার। আসল নাম ফাররোখ বুলজারা। ৮ বছর বয়সে বাবার পেশার সূত্রে আসেন ভারতে। ইংরেজি বোর্ডিং স্কুলে শুরু হয় তার পড়ালেখা। তারপর পিয়ানোতে তালিম নেন এবং স্কুলের কোরাস দলে যোগ দেন। ১৭ বছর বয়সে পরিবারের সাথে লন্ডনে পাড়ি জমান ফাররোখ।

লন্ডনে তিনি চাকরি করতেন একটি কাপড়ের দোকানে। পাশাপাশি বেশ কিছু ব্যান্ডের সাথেও কাজ করতেন। পরে ১৯৭০ সালে বন্ধু রজার টেইলর ও ব্রায়ান মে এর ব্যান্ড ‘স্মাইল’-এ ভোকালের প্রয়োজন হলে ফ্রেডি তাদের ব্যান্ডে যোগ দেন। এ ব্যান্ডের নামই পরবর্তীতে হয়ে যায় ‘কুইন’। ১৯৭১ সালে বেসিস্ট জন ডিকন যোগ দেন কুইনে। এ সময় তার ‘বুলজারা’ নাম ছেড়ে ‘মার্কারি’ নাম গ্রহণ করেন ফ্রেডি।

১৯৭৩ সালে কুইনের প্রথম অ্যালবাম ‘কুইন’ প্রকাশ পায়। তবে ১৯৭৫ সালে তাদের চতুর্থ অ্যালবাম ‘আ নাইট ইন অপেরা’র গান ‘বোহেমিয়ান র‍্যাপসোডি’  ইতিহাস রচনা করে। এক বছরের মধ্যে প্রায় ১০ লক্ষ কপি বিক্রি হয় গানটির। প্রকাশ হওয়ার পর থেকে টানা নয় সপ্তাহ ইংল্যান্ডের টপচার্টে ছিল গানটি। বিংশ শতাব্দীর সর্বোচ্চ ডাউনলোড হওয়া গানও এটি।

সঙ্গীতে বিশেষ অবদান রাখার জন্য ১৯৯০ সালে সম্মানজনক ব্রিট অ্যাওয়ার্ড পায় ‘কুইন’। ২০০১ সালে হল অফ ফেমেও জায়গা করে নেয় তারা। ২০১৮ সালে গ্র্যামির লাইফটাইম অ্যাচিভমেন্ট অ্যাওয়ার্ড পান তারা। কুইন ছাড়াও একক সংগীতশিল্পী হিসেবে বিখ্যাত অপেরা তারকা মোনসেরাত কাবাইইয়ের মতো বহু খ্যাতিমান সঙ্গীতশিল্পীর সাথে কনসার্ট পরিবেশন করেন ফ্রেডি।

১৯৯১ সালে ২৪ নভেম্বর মাত্র পঁয়তাল্লিশ বছর বয়সে লন্ডনে এইডস রোগে আক্রান্ত অসাধারণ এ রক তারকা মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুর আগের দিন পর্যন্ত গান গেয়েছেন তিনি। তার মৃত্যুর পর ব্যান্ডের বাকি সদস্যরা এবং জিম হাটন মিলে প্রতিষ্ঠা করেন ‘দ্য মার্কারি ফিনিক্স ট্রাস্ট’। যার মাধ্যমে অর্জিত অর্থ এইডস আক্রান্ত রোগীদের সহায়তায় ব্যয় করা হয়।

বর্তমানে অ্যাডাম লাম্বার্টকে ভোকাল হিসেবে নিয়ে বিভিন্ন দেশে সফর করে বেড়াচ্ছে কুইন। ২০১৮ সালে ব্রায়ান সিঙ্গারের পরিচালনায় ফ্রেডির জীবনী নিয়ে তৈরি হয় সিনেমা ‘বোহেমিয়ান র‍্যাপসোডি’। যেটি জিতে নেয় চারটি অস্কারসহ অন্যান্য পুরস্কার। ফ্রেডি মার্কারির চরিত্রে অভিনয় করে শ্রেষ্ঠ অভিনেতার অস্কার জয় করে নেন রামি মালিক।

চলে গিয়েছেন ফ্রেডি। কিন্তু যাওয়ার আগে তৈরি করে গিয়েছেন এমন এক ইতিহাস, যার পুনরাবৃত্তি করবার দুঃসাহস বা প্রতিভা কোনোটিই হয়তো ভবিষ্যতে কারো হবে না। একজন রকস্টার হিসেবে তিনি সঙ্গীতকে যা দিয়ে গেছেন, তার জন্য বিশ্বের তাবৎ সঙ্গীতপ্রেমীরা হাজার বছর পরও তাকে ধন্যবাদ জানাবে।

/এসএইচ  





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply