প্রথমবারের মত বিশ্ব দেখতে যাচ্ছে আর্জেন্টিনা-জার্মানি-ব্রাজিল বিহীন সেমি

|

বিশ্বকাপে দারুন ছন্দে থাকা ব্রাজিলের পরাজয় বেলজিয়ামের কাছে। যার মাধ্যমে উরুগুয়ের পর শেষ ল্যাতিন দল হিসেবে রাশিয়া বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিলো পেন্টাজয়ী ব্রাজিল। এর ফলে ৫ম বারের মত অল-ইউরোপীয় সেমিফাইনাল দেখতে যাচ্ছে ফুটবল বিশ্ব।

আর ২১টি আসরের মধ্যে ১২ বারই বিশ্বকাপ থাকছে ইউরোপিয়ানদের কাছে। আর প্রথমবারের মত বিশ্ব দেখতে যাচ্ছে আর্জেন্টিনা-জার্মানী-ব্রাজিল বিহীন সেমিফাইনাল।

ছোট ছোট পাস। লয়,তাল আর শৈল্পিক ছন্দের গতি। এই হচ্ছে ল্যাতিন আমেরিকান ফুটবলের বিশেষত্ব। যা ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা-উরুগুয়ের মতো দেশগুলোকে এনে দিয়েছে ঐতিহ্য ও সাফল্য।

কিন্তু ল্যাতিন সাম্রাজ্যের শৈল্পিক ফুটবলের ছন্দে ছেদ পড়লো কি? ব্রাজিল-উরুগুয়ের বিদায়ে ৫ম বারের মত সর্ব-ইউরোপীয় সেমিফাইনাল হতে যাচ্ছে এবারের রাশিয়া বিশ্বকাপে। বিপরীতে অল-ল্যাতিন আমেরিকা সেমিফাইনাল একটিও দেখেনি বিশ্ব।

ইতালিতে অনুষ্ঠিত ১৯৩৪ বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে খেলেছিল ইতালি, জার্মানি, চেকোস্লোভাকিয়া ও অস্ট্রিয়া। কোয়ার্টারে ল্যাতিন আমেরিকার একমাত্র প্রতিনিধি হাঙ্গেরিকে ২-১ গোলে হারিয়ে সেমিতে ওঠে অস্ট্রিয়া। আর চেকোস্লোভাকিয়াকে ফাইনালে হারিয়ে সেবার বিশ্বকাপ জেতে ইতালি।

প্রথমবারের মত ইংল্যান্ডে আয়োজিত ১৯৬৬ বিশ্বকাপের শেষ আটে উঠেছিল আর্জেন্টিনা,উরুগুয়ে আর হাঙ্গেরী। কিন্তু তাদের হারিয়ে সেমিতে খেলেছিল ইংল্যান্ড, পশ্চিম জার্মানি, পর্তুগাল ও সোভিয়েত ইউনিয়ন। সেবার পশ্চিম জার্মানিকে ফাইনালে হারিয়ে শিরোপা জিতে নেয় ইংল্যান্ড।

স্পেনে ১৯৮২ সালে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে লড়াই হয়েছিল ইতালি, পশ্চিম জার্মানি, পোল্যান্ড ও ফ্রান্সের মধ্যে। সেবার একই গ্রুপে থাকা ইতালির কাছে পাত্তাই পায়নি দুই ল্যাতিন পরাশক্তি ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা। সেই আসরে পশ্চিম জার্মানিকে ৩-১ গোলে হারিয়ে বিশ্বকাপ ঘরে তুলেছিল ইতালি।

আর এই শতকের ২০০৬ জার্মানি বিশ্বকাপে শেষ চারে খেলেছিল ইতালি, ফ্রান্স, জার্মানি ও পর্তুগাল। কোয়ার্টারে স্বাগতিক জার্মানির কাছে আর্জেন্টনার হার আর ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন ব্রাজিলের ফ্রান্সের কাছে হারে কোন ল্যাতিন দলই থাকেনি শেষ ৪ এ। অল ইউরোপ ফাইনালে জিনেদিন জিদানের ফ্রান্সকে হারিয়ে বিশ্বকাপ শিরোপা জিতে নেয় বুফন, ক্যানাভারো, পিরলোদের ইতালি।

৫ ইউরোপীয় ফাইনালের ৩ টিতেই জেতা ইতালি এবার বিশ্বকাপের মূল পর্বেই আসতে পারেনি। গ্রুপ পর্বে ছিটকে গেছে জার্মানি। তাতেও গেরো কাটেনি ল্যাটিন দলগুলোর।

আর্জেন্টিনার পর ব্রাজিল-উরুগুয়েকে বিদায় নিতে হয়েছে ফ্রান্স-বেলজিয়াম দলগুলোর কাছে। পাওয়ার ফুটবলের কাছে টিকতেই পারেনি শৈল্পিক ফুটবল। ফলাফল আরো একবার সর্বইউরোপীয় সেমিফাইনাল।

আর এ কারণেই বিশ্ব প্রথমবারের মতো দেখবে আর্জেন্টিনা-ব্রাজিল-জার্মানি বিহীন শেষ চারের লড়াই। আর সর্বইউরোপীয় সেমিফাইনালের ৫ আসরই অনুষ্ঠিত হয়েছে ইউরোপীয় কোনো দেশে।









Leave a reply