গোপালগঞ্জে বিশ্ববিদ্যালয়ের ঘটনায় ছাত্র-জনতাকে আসামি করে মামলা

|

স্টাফ রিপোর্টার,গোপালগঞ্জ
গোপালগঞ্জে বিশ্ববিদ্যালয়ে সংঘটিত সংঘর্ষ ও ব্যবসা-প্রতিষ্ঠানে অগ্নিসংযোগের ঘটনায় পুলিশ ও এলাকাবাসীর পক্ষে দায়ের করা ২টি মামলায় ৪৭ জনের নাম উল্লেখ করে ১ হাজার ৬শ শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসীর নামে মামলা হয়েছে।

গত ৪ জুলাই রাতে ও ৫ জুলাই দিনভর গোপালগঞ্জে অবস্থিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় শিক্ষার্থী ও গোবরা গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষ, মোটর সাইকেলে আগুন ও বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনের দোকানে অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটে। এ দুই দিনের ঘটনায় অন্ততঃ ৫০ জন শিক্ষার্থী, পুলিশ ও গ্রামবাসী আহত হয়। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিতে ব্যাপক টিয়ার সেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি শান্ত করে। পরে এক সমঝোতা বৈঠকের মাধ্যমে পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। তবে বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে বলে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) মোঃ মনিরুল ইসলাম জানিয়েছেন।

তিনি আরো জানান, বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় ফুটবল খেলার সময় বহিরাগত এক যুবক পাশ দিয়ে হেটে যাওয়া এক ছাত্রীর উদ্দেশ্যে অশালীন কথা বললে এক বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র প্রতিবাদ করে। এ নিয়ে শিক্ষার্থী ও গোবরা গ্রামবাসীর মধ্যে দুই দিন ধরে সংঘর্ষ ও অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

ওসি জানান, পুলিশের কাজে বাধা ও পুলিশকে আহত করার অভিযোগে পুলিশের উপ-পরিদর্শক সুশান্ত কুমার খান ৭শ’ থেকে ৮শ’ উশৃঙ্খল গ্রামবাসী ও শিক্ষার্থীদের নামে মামলা দায়ের করেছেন।

অন্যদিকে শিক্ষর্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনের মার্কেটে ব্যাপক ভাংচুর ও আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয়ার অভিযোগে মার্কেট মালিক সাজেদা বেগম ৪৭ জনের নাম উল্লেখ করে ৭/৮শ’ শিক্ষার্থীকে আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করেছেন।









Leave a reply