মাদারীপুরে সেই শিক্ষিকার বিরুদ্ধে মামলা

|

প্রদ্যুৎ কুমার সরকার, মাদারীপুর
মাদারীপুরে বেত্রাঘাতে শিক্ষার্থীর চোখ ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার ঘটনায় অভিযুক্ত শিক্ষিকা দিল আফরোজ রত্নাকে আসামি করে মামলা করেছেন শিক্ষার্থীর পরিবার। বুধবার রাতে সদর মডেল থানায় মেয়েটির বাবা বাদী মামলা দায়ের করেন। আহত সম্পা শহরের পানিছত্র এলাকার সিরাজুল হক হাওলাদারের মেয়ে ও দরগাখোলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেণির ছাত্রী।
সোমবার দুপুরে শহরের দরগাখোলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বিরতির পর শ্রেণিকক্ষে ক্লাস নিতে প্রবেশ করেন শিক্ষিকা দিল আফরোজ রত্না। শ্রেণিকক্ষে উপস্থিত থাকা সকলে দাঁড়িয়ে শিক্ষিকা সম্মান প্রদর্শণ করে। এ সময় ৫ম শ্রেণির ছাত্রী সম্পা আক্তার (১১) দুষ্টুমিতে হেসে ফেলে। এতে শিক্ষিকা ক্ষিপ্ত হয়ে ওই ছাত্রীকে বেত্রাঘাত করেন। এক পর্যায়ে শরীরের বাম চোখে মারাত্মক আঘাত লাগে। পরে গুরুতর অবস্থায় সম্পাকে তার সহপাঠিরা বাসায় নিয়ে আসে। সেখান থেকে পরিবারের লোকজন মাদারীপুর চক্ষু হাসপাতালে ভর্তি করে। পরে মঙ্গলবার সকালে উন্নত চিকিৎসার জন্য সম্পাকে গোপালগঞ্জের চক্ষু হাসপাতালে নেয়া হয়। এ ঘটনায় অভিযুক্ত শিক্ষিকা দিল আফরোজ রত্নাকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে জেলা শিক্ষা অফিস।

মাদারীপুর সদর মডেল থানার পরিদর্শক (অপারেশন) মো. ইসতিয়াক আহম্মেদ বলেন, শিক্ষার্থীর চোখ ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার ঘটনায় মেয়েটির বাবা বাদী হয়ে মামলা করেছেন। ওই শিক্ষিকাকে ধরতে পুলিশের অভিযান চলছে।









Leave a reply