গুহায় আটকা পড়া ফুটবলারদের উদ্ধারে কতদিন লাগবে?

|

থাইল্যান্ডের গুহায় হারিয়ে যাওয়া ১৩ ফুটবলারকে জীবিত খুঁজে পাওয়া গেছে। তাদের উদ্ধার করতে মাসখানেকের বেশি সময় লাগবে বলে মনে করছে দেশটির সেনাবাহিনী।

নিখোঁজের নয়দিন পর ব্রিটিশ ডুবুরিদের একটি দল থাইল্যান্ডের চিয়াংরাই প্রদেশে গুহার ভেতরে তাদের খুঁজে পেয়েছেন। আটকে পড়া ফুটবলাররা ১১ থেকে ১৬ বছর বয়সী এবং তাদের কোচ ২৫ বছর বয়সী। গুহার ভেতরে পানি থাকায় আটকা পড়াদের বের করে আনতে জটিলতা তৈরী হয়েছে। প্রকৌশলীরা গুহা থেকে পানি অপসারণে সর্বোচ্চ চেষ্টা করছেন। গত এক সপ্তাহে ঘণ্টায় ১০ হাজার লিটার করে পানি গুহা থেকে অপসারণ করা হয়েছে।

তবে থাইল্যান্ডে আগামী কয়েক দিনের মধ্যে বর্ষাকাল শুরু হবে। ভারি বৃষ্টিপাতে উদ্ধার কাজ ব্যহত হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। সেক্ষেত্রে ছেলেদের পানির নিচ দিয়ে বের করে আনতে হবে। এতে কয়েক মাস পর্যন্ত সময় লেগে যেতে পারে!

থাই নৌবাহিনীর অধিনায়ক আনন্দ সুরাভান বলেন, আমরা আটকে পড়াদের জন্য কমপক্ষে চার মাসের খাবার পাঠানোর প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছি।

অস্ট্রেলিয়ার ‘কেভ ডাইভার্স অ্যাসোসিয়েশন’র জাতীয় পরিচালক পিটার ভলফ বলেন, সবচেয়ে ভালো বিকল্প হচ্ছে তারা যেখানে আছে সেখানকার পরিবেশকে স্থিতিশীল রাখা। তাদের প্রয়োজনীয় উপাদানগুলো পূরণ করা। সেখানকার পরিবেশকে যথাসম্ভব ঠাণ্ডা রাখতে হবে। পাশাপাশি, তারা যেন প্রয়োজনীয় উষ্ণতা পায় সেটিও নিশ্চিত করতে হবে। নিয়মিত বিশুদ্ধ খাবার পানি ও খাদ্য সরবরাহ নিশ্চিত করতে হবে।

গুহায় আটকে পড়াদের উদ্ধার ও পুনরুদ্ধার বিষয়ক একটি আন্তর্জাতিক সংগঠনের সদস্য এডিড সোরেনসনের মতে, সাঁতার না জানা এবং গুহা সর্ম্পকে ধারণা না থাকা ব্যক্তিদের বের করে আনা চরম বিপদজ্জনক।

গত ২৩ জুন থাইল্যান্ডের উত্তরাঞ্চলীয় চিয়াংরাই এলাকার থাম লুয়াং গুহায় বেড়াতে গিয়ে নিখোঁজ হয় ওই ১৩ জন। বন্যার পানি গুহার ভেতরে প্রবেশ করায় তারা আর বের হতে পারেনি। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত, গুহার ভেতরে একটি উচু সংকীর্ণ জায়গায় তারা একসঙ্গে রয়েছে।

থাইল্যান্ডের নৌবাহিনীর ফেসবুক পেইজে জানানো হয়েছে, দুই জন নেভি কমান্ডার আটকা পড়াদের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন এবং তাদের খাবার, পানি, স্যালাইন সরবরাহ করা হয়েছে।

ছেলেদের শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল রয়েছে উল্লেখ করে প্রাদেশিক গভর্নর জানান, কয়েকজন সামান্য আহত হয়েছেন। বৃষ্টির কারণে আমাদের উদ্ধার তৎপরতা ধীর গতিতে এগুচ্ছে। আমরা প্রকৃতির বিরুদ্ধে লড়ছি।

তিনি আরো বলেন, আমরা নৌবাহিনীর সঙ্গে কথা বলেছি। ছেলেদের বের করে আনার সব ধরনের কৌশল নিয়ে এগুচ্ছি। গুহার পানি বের করে দেয়ার জন্য ১৩টি ড্রেন খনন করেছি।

নিখোঁজ ফুটবলারদের খুঁজে বের করা ডুবরিরা জানান, গুহার ভেতরে তাপমাত্রা ছিলো প্রায় ২৫ ডিগ্রি। গুহার দেয়াল বেয়ে পানি পড়ছিলো। এ পরিস্থিতিতে আটকে পড়ারা ডিহাইড্রেশন এবং হাইপোথার্মিয়ায় আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকিতে রয়েছেন।

থাইল্যান্ডের কর্তৃপক্ষকে সহায়তা করছে এমন আন্তর্জাতিক দলের অংশীদার বেন রেইমেমানেন্টস আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেন, আগামী তিন দিনের মধ্যে ভারি বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। এর ফলে গুহার মধ্যে আরো পানি প্রবেশ করতে পারে। এতে উদ্ধার কাজ আরো কঠিন হয়ে পড়বে।

আটকে পড়ারা ভূ-পৃষ্ঠ থেকে ৮০০ থেকে ১ কিলোমিটার নিচে রয়েছেন। গুহার মধ্য দিয়ে তাদের কাছে পৌঁছাতে প্রায় ২ কিলোমিটার দূরত্ব পাড়ি দিতে হবে।

ব্রিটিশ কেভ রেসকিউ কাউন্সিলের ভাইস চেয়ারম্যান বিল হোয়াইটহাউস বলেন, তারা গুহার অপেক্ষাকৃত ছোট স্থানটিতে অবস্থান করছে। এতে উদ্ধার প্রচেষ্টা আরো কঠিন হবে।

থাম লুয়াং থাইল্যান্ডের দীর্ঘতম ও বিপজ্জনক গুহাগুলোর একটি। ভেতরের সরু পথ এবং স্থানে স্থানে সাপের গর্ত থাকায় এটি বেশ দুর্গম। বর্ষাকালে গুহার আশেপাশে দর্শনার্থীদের ঘেঁষা নিষেধ।

যমুনা অনলাইন: এফএম/টিএফ









Leave a reply