ধূমপানের অভ্যাস মাঝবয়সে ছাড়লে উপকার পাওয়া যাবে কি?

|

ছবি: সংগৃহীত

ধূমপান স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর এ কথা কারও অজানা নয়। তবে এটি ছাড়া এতো সহজ নয়। অনেকে এই আসক্তি থেকে মুক্ত হতে পার করে দেন বছরের পর বছর। তবে চিকিৎসকদের মতে দীর্ঘদিন ধরে তামাকজাত এ পণ্যতে অভ্যস্তের পর তা ছেড়ে দিলে কিছুটা হলেও শরীরের উন্নতি হয়।

ধূমপানের ফলে ফুসফুসের দফা রফা হয়ে ক্যানসারের আশঙ্কা তৈরি হয়। সেই অবস্থা থেকে আবারও সুস্থ অবস্থায় ফিরতে পারে ফুসফুস। অন্তত এমনটাই আশ্বাস চিকিৎসকদের। তবে ধূমপান পুরোপুরি ছেড়ে দেয়ার পরেই ফুসফুসের পূর্বক্ষমতা ফিরে আসে। টানা অনেক বছর ধরে যারা প্রতি দিন ধূমপান করছেন, এই অভ্যাস ছাড়ার পর তাদের ফুসফুসের ক্ষেত্রেও এই সুফল প্রযোজ্য। গবেষণা অবশ্য এমনটাই বলছে।

‘নেচার’ পত্রিকায় প্রকাশিত সাম্প্রতিক গবেষণা নিবন্ধ থেকে জানা যায়, সিগারেটে থাকা বিভিন্ন রাসায়নিক ফুসফুসের কোষের ডিএনএ’কে মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করে। ধূমপান ছেড়ে দেয়ার প্রথম মাসের মধ্যেই ফুসফুসের কার্যকারিতা উন্নত হয়। বাড়তে শুরু করে রক্তসঞ্চালনও।

চিকিৎসকরা বলছেন, ধূমপান ত্যাগের নয় মাসের মধ্যে সিলিয়া স্বাভাবিক কাজ করতে শুরু করে। কাশি, শ্বাসকষ্টের মতো লক্ষণগুলোও কম হয়।

এটিএম/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply