১৯৬২ সালের পর পরমাণু হামলার সর্বোচ্চ শঙ্কা বিরাজমান: বাইডেন

|

ছবি: সংগৃহীত

১৯৬২ সালে কিউবান ক্ষেপণাস্ত্র সংকটের পর এখন পরমাণু হামলার সর্বোচ্চ শঙ্কা বিরাজ করছে। রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধকালীন প্রেক্ষিতে এমন মন্তব্য করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। তিনি বলেছেন, ইউক্রেনে প্রতিরোধের মুখে পড়ে কৌশলগত পরমাণু অস্ত্র ব্যবহারের কথা মোটেও কৌতুক করে বলেননি রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। খবর বিবিসির।

জো বাইডেন বলেন, কৌশলগত পারমাণবিক এবং রাসায়নিক অস্ত্র প্রয়োগের ব্যাপারে পুতিন যেহেতু বলছেন, তিনি নিশ্চয়ই মজা করে এমন মন্তব্য করছেন না। কারণ, ইউক্রেনে রুশ সেনাবাহিনীর দক্ষতা হুমকির মুখে পড়েছে। আর এভাবেই যদি সবকিছু চলতে থাকে তবে বলতেই হয় যে, কিউবান ক্ষেপণাস্ত্র সংকটের পর বিশ্ব এখন প্রথমবারের মতো পারমাণবিক হামলার প্রত্যক্ষ হুমকিতে রয়েছে।

ছবি: সংগৃহীত

অন্যদিকে, যুক্তরাষ্ট্রের নিরাপত্তা উপদেষ্টা জেক সুলিভান গত সপ্তাহেই বলেছেন, মস্কোর পারমাণবিক অস্ত্র প্রয়োগের উস্কানি সত্ত্বেও যুক্তরাষ্ট্রের কাছে তথ্য আছে, রাশিয়া এই কাজ করার প্রস্তুতি এখনই নিচ্ছে না।

আরও পড়ুন: খেরসনে চলছে রুশ-ইউক্রেনীয় সেনাদের তুমুল লড়াই

সম্প্রতি ইউক্রেনের যে চারটি অঞ্চল দখল করে স্বাধীন বলে ঘোষণা করেছিল রাশিয়া, সে সব অঞ্চল নিজেদের আওতায় নিয়েছে কিয়েভ। এছাড়া, বিগত কয়েক মাস ধরেই মার্কিন নিরাপত্তা কর্মকর্তারা সতর্কবার্তা দিয়ে যাচ্ছে যে, যুদ্ধক্ষেত্রে ব্যর্থ হলে গণবিধ্বংসী অস্ত্র প্রয়োগ করতে পারে রাশিয়া।

গত শুক্রবার (৩০ সেপ্টেম্বর) একটি বক্তৃতার সময়, রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেছিলেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের শেষের দিকে জাপানের বিরুদ্ধে পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহার করে একটি ‘নজির’ তৈরি করেছিল। বিবিসির রাশিয়া প্রতিনিধি স্টিভ রোজেনবার্গ উল্লেখ করেছেন, পুতিনের এমন মন্তব্য পশ্চিমা সরকারগুলোর নজর এড়িয়ে গেছে।

আরও পড়ুন: জাপোরিঝিয়া পরমাণু কেন্দ্রকে ইউক্রেনের অংশ হিসেবেই বিবেচনা করবে আইএইএ

/এম ই





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply