রাজশাহীতে নির্বাচনের পোস্টার সাঁটাতে গিয়ে গ্রামপুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় মামলা

|

ছবি: প্রতীকী

রাজশাহী ব্যুরো:

রাজশাহীর মোহনপুরে গভীর রাতে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান প্রার্থীর পোস্টার সাঁটানোর সময় গ্রামপুলিশের ওপর হামলা ও এক যুবককে গাড়ি চাপা দেয়ার ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে।

বুধবার রাতের এ ঘটনায় ধুরইল ইউনিয়ন পরিষদ গ্রামপুলিশের দফাদার আবদুল ওহাব বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার রাত ১১টার দিকে মোহনপুর থানায় মামলাটি দায়ের করেন। এতে আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কৃত বিদ্রোহী প্রার্থী আক্তারুজ্জামানের নির্বাচনী সমন্বয়কারী অ্যাডভোকেট আবু মাসুদ রায়হানসহ ৭ জনের নাম উল্লেখ করে আরও অজ্ঞাতদের আসামি করা হয়েছে।

মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, আক্তারুজ্জামানের কর্মীরা বৃহস্পতিবার রাতে ধুরইল ইউনিয়ন পরিষদে পোস্টার লাগাতে গিয়ে অফিসের তালা খুলতে বলে গ্রামপুলিশদের। তারা তালা খুলতে রাজি না হলে তাদের সঙ্গে বাগবিতণ্ডা হয়। এরপর গভীর রাতে অ্যাডভোকেট রায়হানের নেতৃত্বে তিনটি মাইক্রোবাসে করে আক্তারুজ্জামানের সমর্থকরা এসে তালা ভেঙে গ্রাম পুলিশদের ওপর হামলা করে। এ সময় তাদের চিৎকারে গ্রামবাসী ছুটে এসে তাদের বাধা দেয়। এ সময় একটি গাড়ি মোতালেব নামের এক যুবককে চাপা দিয়ে আহত অবস্থায় ফেলে রেখে চলে যায়। পরে তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এদিকে বুধবার রাতের ঘটনা নিয়ে বৃহস্পতিবার চেয়ারম্যান প্রার্থী আক্তারুজ্জামান জেলা পরিষদ নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন। সেখানে তিনি ধুরইল ইউপি চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে হামলার অভিযোগ এনেছেন। সেই সঙ্গে ঘটনার পর সেখানে রাজশাহী-৩ আসনের সংসদ সদস্য আয়েন উদ্দিনের উপস্থিতি নিয়েও অভিযোগ তুলেছেন।

এ ব্যাপারে সংসদ সদস্য দাবি করেছেন, ইউনিয়ন পরিষদে হামলা চালিয়ে গাড়ি চাপায় একজন নিহত হয়েছেন বলে তার কাছে খবর গেলে তিনি ঘটনাস্থলে যান। এরপর সেখানে গিয়ে জানতে পারেন যে মোতালেব নামে একজন আহত হয়েছেন। আক্তারুজ্জামান উদ্দেশ্যমূলকভাবে তাকে বিতর্কিত করার চেষ্টা চালাচ্ছেন বলে অভিযোগ করেন আয়েন উদ্দিন।

ইউএইচ/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply