পটুয়াখালীতে পুলিশ কর্মকর্তা ও সোর্সের বিরুদ্ধে মামলা

|

পটুয়াখালী করেসপন্ডেন্ট:

পটুয়াখালীতে চাঁদা দাবি ও শারীরিক নির্যাতনের অভিযোগে পুলিশের এক কর্মকর্তা ও সোর্সের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা দায়ের হয়েছে। আসামিরা হলেন— সদর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) বিপুলসহ (৪০) এবং সদর উপজেলার লোহালিয়া ইউনিয়নের শহিদ ফকিরের ছেলে রাহাত ফকির (২৬) ও অজ্ঞাত ২-৩ জন।

রোববার (২ অক্টোবর) পটুয়াখালীর সিনিয়র ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মো. রুবেল খান (৩০) নামের এক ব্যক্তি বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। পরে আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে সিআইডিকে আগামী ৩০ দিনের মধ্যে তদন্তপূর্বক প্রতিবেদন দেয়ার নির্দেশ দেন।

ভুক্তভোগী রুবেল খান বর্তমানে পটুয়াখালী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তিনি সদর উপজেলার লোহালিয়া ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের মৃত আব্দুল লতিফ খানের ছেলে। রুবেল ওই ইউনিয়নে ভাড়ায় চালিত মোটরসাইকেল চালক।

মামলা বিবরণে বলা হয়, মামলার ১ নম্বর আসামি রাহাত ফকির দীর্ঘদিন পুলিশের সোর্স পরিচয় দিয়ে ওই ইউনিয়নে চলাচল করে আসছেন। মিথ্যা মামলা দিয়ে ফাঁসিয়ে দেবেন বলে রুবেল খানের কাছে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে রাহাত। চাঁদা না দেয়ায় গত শুক্রবার দুপুর ১টার দিকে পৌরসভার লোহালিয়া খেয়াঘাট সংলগ্ন টোল ঘরে রুবেল খানের সঙ্গে রাহাতের বিরোধ আছে কিনা জানতে চান এসআই বিপুল। এ সময় সিভিল পোশাকে থাকা এসআই বিপুলসহ কয়েকজন মিলে রুবেল খানকে মারধর করে এবং হাতকড়া পরিয়ে মোটরসাইকেলে সদর থানায় নিয়ে যায়। থানায় নিয়ে তাকে মারধর করা হয়নি এবং কোনো রকম টাকা-পয়সা নেয়া হয়নি মর্মে জোরপূর্বক মৌখিক স্বীকারোক্তির ভিডিও ফুটেজ নিয়ে রুবেল খানকে ছেড়ে দেয়া হয়।

/এমএন





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply