লেভানদোভস্কির গোলে জয় পেয়েছে বার্সা

|

ছবি: সংগৃহীত

মায়োর্কার মাঠে লা লিগায় শনিবার রাতে ১-০ গোলে জিতে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে উঠে এসেছে বার্সেলোনা। তবে রিয়াল মাদ্রিদের সামনে সুযোগ আছে রোববার ওসাসুনাকে হারিয়ে শীর্ষস্থান পুনরুদ্ধার করার।

ম্যাচের ২০তম মিনিটেই এগিয়ে যায় বার্সেলোনা। বাঁ প্রান্ত থেকে আনসু ফাতির বাড়ানো পাস থেকে বল ধরে ক্ষিপ্রতায় ডি-বক্সে ঢুকে একজনকে কাটিয়ে কোনাকুনি শটে মায়োর্কার জালে বল পাঠান রবার্ট লেভানদোভস্কি। বার্সেলোনা এগিয়ে যায় ১-০ গোলে।

লা লিগায় টানা ৬ ম্যাচে গোল পেলেন এই পোলিশ তারকা; পিচিচি ট্রফির দৌড়ে ৯ গোল নিয়ে গোল স্কোরারের তালিকায় শীর্ষে তিনি। সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে বার্সেলোনার জার্সিতে তার গোল হলো ১২টি।

৩২তম মিনিটে লেভানদোভস্কির হেড লক্ষ্যভ্রষ্ট হলে ব্যবধান দ্বিগুণ করার সুযোগ থেকে বঞ্চিত হয় বার্সা। তিন মিনিট পর বার্সেলোনার বক্সে ভীতি ছড়ায় মায়োর্কা। তবে ইয়াওমে কস্তার স্লাইড শট ঠেকিয়ে দেন বার্সা গোলরক্ষক মার্ক-আন্ড্রে টের স্টেগেন। ১-০ গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় সফরকারী দল।

বিরতি থেকে ফিরে প্রথম ৬ মিনিটে দুটি ভালো আক্রমণ করে মায়োর্কা। ভেদাত মুরিকির হেড লক্ষ্যভ্রষ্ট হওয়ার পর আন্তোনিও সানচেজের জোরাল শট ঝাঁপিয়ে ঠেকান মার্ক-আন্ড্রে।

এরপর খেলার গতি অনেকটা কমে যায়। পুরো ম্যাচে খুব বেশি সুযোগ তৈরি করতে পারেনি বার্সেলোনা। দ্বিতীয়ার্ধে তো পয়েন্ট হারানোর শঙ্কাও জেগেছিল। তবে রবার্ট লেভানদোভোস্কির শুরুতে করা গোল শেষ পর্যন্ত আগলে রেখে স্বস্তির জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে জাভির শিষ্যরা।

এদিন ম্যাচ শুরুর আগে থেকেই চাপে ছিল বার্সা। আন্তর্জাতিক বিরতিতে চোটে পড়ায় একাধিক খেলোয়াড়কে এই ম্যাচে পাননি কাতালান ক্লাবটির কোচ জাভি হার্নান্দেজ। জুলস কুন্দে, রোনাল্ড আরাউহো, ফ্রেঙ্কি ডি ইয়ং, মেম্ফিস ডিপাইকে বাদ দিয়েই পরিকল্পনা সাজাতে হয় তাকে।

জয় পেলেও ম্যাচে যে চাপে ছিলেন, তা মেনে নিয়েছেন বার্সা কোচ জাভিও। ম্যাচ শেষে তিনি বলেছেন, আমরা বেশ শান্ত ছিলাম এবং ধৈর্যও দেখিয়েছি। যখন জায়গা পাওয়া যায় না, তখন ধৈর্য ধরা কঠিন হয়ে পড়ে। আপনাকে তখন নিখুঁত হতে হয়।

ইউএইচ/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply