জাবিতে গাড়ি চালকদের প্রাথমিক চিকিৎসা বিষয়ক প্রশিক্ষণ

|

নিজস্ব প্রতিবেদক:

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত গাড়িচালক ও সুপারভাইজারদের প্রাথমিক চিকিৎসা বিষয়ক প্রশিক্ষণ দিয়েছে রেডক্রিসেন্ট সোসাইটি। বিশ্ব প্রাথমিক চিকিৎসা দিবস- ২০২২ উপলক্ষে ‘লাইফ লং ফার্স্টএইড লার্নিং’ বিষয়কে প্রতিপাদ্য করে বাংলাদেশ রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির অধীনে জাতীয় সদর দফতর যুব রেডক্রিসেন্ট বাংলাদেশের পাঁচটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি, রাবি, ঢাবি, জবি, চবি) প্রাথমিক চিকিৎসা বিষয়ক কর্মশালার আয়োজন করেছে।

এরই অংশ হিসাবে শনিবার সকাল ৯টা থেকে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে
যুব রেডক্রিসেন্ট শাখা বিশ্ববিদ্যালয়টির পরিবহন পুলের গাড়ি চালক ও সুপারভাইজারদের প্রাথমিক চিকিৎসা বিষয়ক প্রশিক্ষণ দিয়েছে।

চিকিৎসাবিষয়ক কর্মশালায় সকল বাস চালক ও সুপারভাইজারদের ফার্স্ট এইড কিট বিতরণ করা হয়। এরপর চিকিৎসা গ্রহণ ও প্রদান বিষয়ে হাতে-কলমে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়। কর্মশালার উদ্বোধনী অধিবেশনে উপস্থিত ছিলেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. নূরুল আলম, বাংলাদেশ রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির মহাসচিব কাজী শফিকুল আলম, জাবির উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক শেখ মো. মঞ্জুরুল হক, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. রাশেদা আখতার, রেজিস্ট্রার রহিমা কানিজ, প্রক্টর আ স ম ফিরোজ-উল-হাসান, পরিবহন অফিসের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ ছায়েদুর রহমান, রেডক্রিসেন্টের যুব প্রধান জাহিদুল ইসলাম জিহাদ, যুব রেডক্রিসেন্ট-জাবির ইনচার্জ ও সমন্বয়ক মহিবুর রৌফ শৈবালসহ প্রমুখ।

কর্মশালা উদ্বোধনকালে উপাচার্য অধ্যাপক ড. নূরুল আলম বলেন, স্বাধীনতাত্তোরকালে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান প্রথম রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির কার্যক্রমকে অনুমোদন দেন। এরই ধারাবাহিকতায় রেডক্রিসেন্টের কার্যক্রম প্রসারিত হয়েছে। আধুনিক মানসম্মত বিশ্ববিদ্যালয় গড়ে তোলার জন্য যুব রেড ক্রিসেন্ট কার্যক্রমের প্রশিক্ষণ কর্মশালার কোনো বিকল্প নেই। দেশ গঠন ও যুব নেতৃত্ব তৈরিতে রেড ক্রিসেন্টের কার্যক্রম প্রশংসার দাবি রাখে।

জাবি যুব রেডক্রিসেন্টের ইনচার্জ মহিবুর রৌফ শৈবাল বলেন, আধুনিক মানব সম্পদ তৈরির জন্য যুব রেড ক্রিসেন্টের কার্যক্রমের বিকল্প নেই। দেশের যেকোনো দুর্যোগে যুব রেড ক্রিসেন্ট সবার আগে এগিয়ে আসে, মানুষের পাশে দাঁড়ায়। যেহেতু বাংলাদেশের সকল বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় প্রথম যুব রেড ক্রিসেন্ট দলীয় কার্যক্রম শুরু করেছে, সে বিষয়টি লক্ষ্য রেখে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল অংশীজনকে দুর্যোগ মোকাবেলা ও প্রস্তুতি শীর্ষক প্রশিক্ষণের আওতায় এনে যেকোনো দুর্যোগে ঝুঁকি ও ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ কমিয়ে আনতে যথাযথভাবে শিক্ষা প্রদান করবে।

তিনি বলেন, স্কুল-কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে রেড ক্রিসেন্টের কার্যক্রম চালু রয়েছে। ২০১৮ সালে জাবিতে রেড ক্রিসেন্ট অনুমোদন পায়। আমরা বিভিন্ন টিম করে বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরে সেবা কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছি। আমরা ধাপে ধাপে আমাদের এই সেবা কার্যক্রম চালিয়ে যাবো। গত ভর্তি পরীক্ষার সময় আমরা ৪ হাজার ২শ’ জনকে প্রাথমিক সেবা দিয়েছি। আমরা যদি বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিকল্পনা অনুযায়ী কাজ করতে পারি তাহলে প্রতিবছর ২ হাজার ৪০০ জনকে প্রশিক্ষণ দিতে পারবো।

ইউএইচ/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply