মহাসড়কে মৃত্যুফাঁদ: প্রাণ গেলো ৩৬ জনের

|

মহাসড়ক যেন মৃত্যুফাঁদ। গাইবান্ধা, রংপুরসহ ৮ জেলায় আলাদা সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন ৩৬ জন; আহত অর্ধশতাধিক। কেবল গাইবান্ধাতেই নৈশকোচ খাদে পড়ে প্রাণ হারান ১৮ জন। এর আগে রংপুরের থেমে থাকা বিআরটিসি বাসকে ট্রাক ধাক্কা দিলে মৃত্যু হয় ৬ জনের। নিহতদের পরিবারকে ১০ হাজার টাকা করে আর্থিক সহায়তা দেয়ার কথা জানিয়েছে প্রশাসন। এছাড়া আরও ৬ জেলায় সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ গেছে ১২ জনের।

ঢাকা থেকে পঞ্চগড়গামী আলম পরিবহনের একটি বাস ভোরে গাইবান্ধার পলাশবাড়ীর বাঁশকাটা মহেশপুরে পৌঁছায়। নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাছের সাথে ধাক্কা লেগে খাদে পড়ে যায় বাসটি। ঘটনাস্থলেই নারী-শিশুসহ মারা যান ৯ জন। হাসপাতালে নেয়ার পথে ও চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয় আরও কয়েকজনের।

ঘটনার পরপরই হাইওয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস সদস্যরা উদ্ধার তৎপরতা শুরু করে। আহতদের পাঠানো হয় বিভিন্ন হাসপাতালে।

বাস যাত্রীরা জানান, ক্লান্ত চালক গাড়ি চালানো অবস্থায় ঘুমিয়ে পড়েন। যার ফল মর্মান্তিক এই দুর্ঘটনা।

পুলিশ বলছে, দুর্ঘটনার কারণ চিহ্নিত করে নেয়া হবে ব্যবস্থা। নিহতদের পরিচয় নিশ্চিত করে দেয়া হচ্ছে আর্থিক সহায়তা।

রংপুরের পাগলাপীরে ট্রাকের ধাক্কায় দাড়িয়ে থাকা বাসের ৬ যাত্রী নিহত হয়েছেন। দুর্ঘটনায় আহত তিনজনকে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও বাসযাত্রীরা জানান, দিনাজপুর থেকে ছেড়ে আসা বিআরটিসি’র একটি দোতলা বাস রংপুরের পাগলাপীরে পৌঁছলে বাসটির চাকা পাংচার হয়। চাকা সারানোর জন্য বাসটি রাস্তার পাশে দাঁড় করালে পেছন থেকে বালুভর্তি একটি ট্রাক ধাক্কা দেয়। দুর্ঘটনার পর ট্রাকটি জব্দ করা হলেও চালক পলাতক।

এছাড়া গোপালগঞ্জ, নাটোর, সিরাজগঞ্জ, ফরিদপুর, লক্ষ্মীপুর ও সাভারেও সড়কে ছিল মৃত্যুর মিছিল।









Leave a reply