পুলিশকে কামড় দিয়ে হ্যান্ডকাফসহ পালালো আসামি

|

ফাইল ছবি

নোয়াখালী প্রতিনিধি:

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে পুলিশের ওপর হামলা চালিয়ে হ্যান্ডকাফসহ ইসমাইল হোসেন বয়াতি (৪৫) নামের মাদক মামলার এক আসামি পালিয়ে গেছে। ওই আসামির নারী স্বজনেরা পুলিশের ওপরও হামলা চালিয়েছে বলে জানা গেছে।

বুধবার (২৮ সেপ্টেম্বর) বিকেল সোয়া ৪টার দিকে উপজেলার বসুরহাট পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ডের জামাইয়ের টেক এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আসামির আত্মীয়দের কামড়ে আহত কোম্পানীগঞ্জ থানার সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) মো. রবিউল প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানা গেছে।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, মাদক কারবারি বয়াতি পেশায় একজন ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা চালক ছিলেন। সে দীর্ঘ তিন বছর যাবত রিকশা চালানো ছেড়ে দিয়ে বসুরহাট পৌরসভার ৮নম্বর ওয়ার্ডে এক স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতার মদদে মাদক কারবার চালিয়ে আসছে। বুধবার দুপুরের দিকে জামাইয়েরক টেক এলাকায় মাদক বিক্রি হচ্ছে এমন গোপন খবর পেয়ে এএসআই রবিউলের নেতৃত্বে ওই এলাকায় অভিযান চালান একদল পুলিশ সদস্য। অভিযানে গাঁজাসহ বয়াতিকে গ্রেফতারও করেন তারা।

পরে বয়াতিকে ছাড়িয়ে নিতে তার পরিবারের কয়েকজন নারী ও পুরুষ সেখানে উপস্থিত হন। একপর্যায়ে আসামিকে নিয়ে পুলিশ সদস্যরা থানায় যেতে উদ্যত হলে ঘটনাস্থলে এক নারী পুলিশ সদস্যের হাতে কামড় দিয়ে আসামিকে ছিনিয়ে নিয়ে পালিয়ে যায়।

এরপর, ঘটনাস্থলে দফায় দফায় অভিযান চালিয়ে মাদক কারবারি বয়াতির মামা মোশারেফ (১৯), সৌরভ (২৪), মামাতো ভাই কালা (১৯) ও প্রতিবেশী ইমন (২৪) নামের কয়েকজনকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। তবে বুধবার রাত ৮টা পর্যন্ত অভিযান চালিয়েও পালিয়ে যাওয়া বয়াতি ও তার নিজ পরিবারের কাউকেই আটক করতে পারেনি পুলিশ।

জানতে চাইলে এএসআই মো.রবিউল বলেন, ঘটনাস্থলে আমরা ৪-৫জন পুলিশ ছিলাম। নারী হওয়ায় আমরা কিছু করতে পারিনি।

কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি মো.সাদেকুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, পালিয়ে যাওয়া বয়াতিকে গ্রেফতার করতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। সে এলাকার চিহিৃত মাদক কারবারি। তার বিরুদ্ধে কোম্পানীগঞ্জ থানায় একাধিক মাদক মামলা রয়েছে।

/এসএইচ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply