হাসপাতালে জামাই-শাশুড়ির দ্বন্দ্ব, থামাতে গেলে ক্লিনিক কর্মচারীকে কুপিয়ে জখম

|

সিনিয়র করেসপনডেন্ট, মানিকগঞ্জ:

মানিকগঞ্জে জামাই ও শ্বাশুড়ির বাকবিতন্ডাকে কেন্দ্র করে এক ক্লিনিক কর্মচারীকে বটি দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করার ঘটনা ঘটেছে। হামলার ঘটনাটি ধরা পরে সিসিটিভি ক্যামেরায়। আহত সাইদুর রহমানকে (৩০) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তিনি শাপলা ক্লিনিকের রিসিপসনিস্ট।

মঙ্গলবার (২৭ সেপ্টেম্বর) দুপুরে জেলা শহরের শাপলা ক্লিনিকে এই হামলার ঘটনা ঘটে। পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, মানিকগঞ্জ পৌর এলাকার বান্দুটিয়া গ্রামের বাসিন্দা উল্লাস (২৬) শাপলা ক্লিনিকে তার প্রসূতি স্ত্রীকে ভর্তি করেন। সোমবার সকালে তার শ্বাশুড়ি ক্লিনিকে আসলে এক পর্যায়ে জামাই ও শ্বাশুড়ির মধ্যে কথা কাটাকাটি শুরু হয়। এ সময় ক্লিনিকের কর্মচারী সাইদুর রহমান এগিয়ে গেলে উল্লাস তাদের সাথেও অশালীন আচরণ করেন। উল্লাসের বড় ভাই উৎসবের সহযোগিতায় সে সময় পরিস্থিতি শান্ত হয়।

এর কয়েক ঘণ্টা পর বটি নিয়ে ক্লিনিকে ঢুকে রিসিপসনিস্ট সাইদুর রহমানকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে উল্লাস। ক্লিনিকের সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায়, উল্লাস কাপড়ের মধ্যে লুকিয়ে বটি নিয়ে ক্লিনিকে প্রবেশ করে। এরপর রিসিপসনিস্ট সাইদুর রহমানকে এলোপাতারি কোপায়। পরে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এলে হামলাকারী উল্লাস পালিয়ে যায়।

জানা গেছে, উল্লাস একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন। প্রায় এক বছর আগে প্রতিবেশী হাশেম আলীর মেয়ে পুষ্পাকে বিয়ে করেন তিনি। কিন্তু দুই পরিবারের মধ্যে সম্পর্ক ভালো ছিল না। এর জের ধরেই জামাই শ্বাশুড়ি বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে পড়েন।

এ নিয়ে মানিকগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রউফ সরকার জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়। হামলাকারী পালিয়ে যাওয়ায় তাকে ধরা সম্ভব হয়নি। তবে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তার বড় ভাই ও বাবাকে থানায় আনা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের প্রস্ততি চলছে বলে জানান তিনি।

এসজেড/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply