ক্ষতি এড়িয়ে ইয়ারফোন ব্যবহার করবেন কীভাবে?

|

কানে ইয়ারফোন লাগিয়ে গান শোনার অভ্যাস আছে তরুণ প্রজন্মের প্রায় সবার। তবে এ অভ্যাসের কারণে শ্রবণশক্তির সমস্যা থেকে শুরু করে ইয়ারফোন গানে লাগানো অবস্থায় দুর্ঘটনায় প্রাণহানির মতো ঘটনাও নতুন নয়। তবে একটু সাবধান হলে এসব সমস্যা থেকে দূরে থাকা সম্ভব।

সস্তা ইয়ারফোন এড়িয়ে চলুন। যে সংস্থার মোবাইল, সেই সংস্থারই ইয়ারফোন ব্যবহার করুন। প্রতিটি সংস্থা তাদের নির্দিষ্ট ফোনের জন্য নির্দিষ্ট ইয়ারফোন তৈরি করে। ফোন থেকে বের হওয়া তরঙ্গ, কম্পন ইত্যাদির উপর ভিত্তি করে ঠিক করা হয় ইয়ারফোনের ক্ষমতা। অনেকেই ইয়ারফোন খারাপ হলে বাজারের সস্তা ইয়ারফোন কিনে ব্যবহার করেন। কিন্তু এই ধরনের ইয়ারফোনগুলোর তরঙ্গ ও কম্পনের মাত্রার পরিমিতি থাকে না। যা কানের জন্য খুব ক্ষতিকর।

শ্রবণশক্তি বাঁচাতে খুব জোরে ইয়ারফোনে গান শুনবেন না। ইয়ারফোনে গান শোনার সময় সর্বোচ্চ ভল্যুমে কখনোই শব্দ শোনা উচিত না। এতে কানের পর্দার মরাত্মক ক্ষতি হয়। ফোনের আওয়াজ বাড়ানোর সময় ফোনের থেকেও এ সংক্রান্ত সতর্কবার্তা দেয়া হয়। কাজেই নির্দিষ্ট মাত্রার বেশি আওয়াজ দিয়ে গান শুনবেন না।

কম শব্দে গান শোনার আরেকটি উপকার হলো, এতে আশেপাশের শব্দও শোনা যায়। রাস্তায় চলাচলের ক্ষেত্রে কম শব্দে ইয়ারফোন চালানো উচিত। বিশেষ করে রেললাইনে চলার সময় কখনোই কানে ইয়ারফোন দিয়ে হাঁটবেন না। একটু অসাবধানতার কারণে আপনার প্রাণও চলে যেতে পারে।

এসজেড/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply