আরও ১০ বছর উড়োজাহাজ থেকে লাফিয়ে পড়তে চান ৮৮ বছর বয়সী ক্যালেসিচ

|

বসনিয়ান স্কাইডাইভার ইব্রাহিম ক্যালেসিচ। ছবি: সংগৃহীত

বয়সের ভারে শরীর নুয়ে পড়লেও অনেকের মন থাকে চির রঙ্গিন। মনের ইচ্ছে থাকলেই অনেক সময় পূরণ হয় আকাঙ্ক্ষা। অনেকের ক্ষেত্রেই তাই বয়স যেন নেহাতই এক সংখ্যা মাত্র। আর সেটি প্রমাণ করেছেন ৮৮ বছর বয়সের ইব্রাহিম ক্যালেসিচ। গত ৭০ বছর ধরে যে কাজটি করে চলেছেন তিনি, আরও ১০ বছর আকাশ থেকে লাফিয়ে পড়ার সে কাজই করতে চান এই বসনিয়ান।

ছবি: সংগৃহীত

এক্সট্রিম স্পোর্টস শুধু মাত্র খেলতে পারে ইয়াংস্টাররা। এই কথাকে সম্পূর্ণ ভুল প্রমানিত করেছেন বসনিয়ার এই স্কাইডাইভার। নিয়মিত উড়োজাহাজ থেকে লাফিয়ে পড়ার এই চ্যালেঞ্জিং খেলায় এখনও খুঁজে পাওয়া যায় তাকে।স্কাইডাইভিং এর সঙ্গে তার সম্পর্কটা বেশ পুরনো। জীবনের ৭০ বছর পাড়ি দিয়েছেন এটির সাথে যুক্ত থেকেই। সম্প্রতি বসনিয়ার বিহাখ শহরে প্যারাসুটিং কম্পিটিশনে অংশ নিয়েছেন ক্যালেসিচ। এতে অংশ নিয়ে ১ হাজার ৪৮৭ বার উড়োজাহাজ থেকে লাফ দেয়ার কৃতিত্ব অর্জন করেন তিনি।

ছবি: সংগৃহীত

নিজের ফিট থাকার রহস্যটাও উন্মুক্ত করেছেন ক্যালেসিচ। প্রতিদিন ১৫ মিনিটের ব্যায়াম করেছেন এই স্কাইডাইভার। তার খাওয়া-দাওয়া সঠিক হচ্ছে কিনা, সেই বিষয়টা খেয়াল রাখেন ক্যালেসিচের সহধর্মিনী। বসনিয়ান এই স্কাইডাইভার বলেন, আমার জন্ম ১৯৩৫ সালের ৬ মার্চ। এবং আমি স্কাইডাইভিং করি ১৯৫১ সাল থেকে। বর্তমানে আমার বয়স ৮৮। অফিশিয়ালি আমি ইউরোপের সবচেয়ে প্রবীণ স্কাইডাইভার। আমার লক্ষ্য আরও ১০ বছর এভাবে দাপিয়ে বেড়াবো। যাতে করে গিনেস বুকে নিজের নামটা লেখাতে পারি।

ছবি: সংগৃহীত

ক্যালেসিচ যেখানেই স্কাইডাইভিংয়ে যান না কেন, সেখানে তাকে স্বাগত জানায় সবাই। আবার অনেকে অবাক হয়ে বলতে থাকেন, ৮৮ বছর বয়সে এটি কীভাবে সম্ভব! এমনকি গত মাসেও মোট ৫ বার বিমান থেকে লাফ দিয়েছেন ক্যালেসিচ।

১৯৫১ সালে সার্বিয়ায় একটি ফ্লাইং সেন্টারে স্কাইডাইভিংয়ের প্রশিক্ষণ নিয়েছিলেন ক্যালেসিচ। এরপর ১৯৬৩ সালে ৫ হাজার ৫০০ মিটার উচ্চতায় বিমান থেকে লাফিয়ে রেকর্ডও গড়েছিলেন তিনি। বর্তমানে এই ৮৮ বছরের ‘তরুণ’ প্রশিক্ষণ দিয়ে থাকেন নতুন স্কাইডাইভারদের।

আরও পড়ুন: অঘোষিত কোয়ার্টার ফাইনালে মুখোমুখি পর্তুগাল-স্পেন

/এম ই





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply