বন্দুক যুদ্ধে নিহত ১, আরও দুই মাদক ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার

|

সিরাজগঞ্জে পুলিশের সাথে কথিত বন্দুকযুদ্ধে একজন নিহত হয়েছে। পুলিশের দাবি, নিহত জাহাঙ্গীর মাদক চোরাকারবারী। গতরাতে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ জানায়, শহরের মাহমুদপুরে মাদকের একটি বড় চালান আসছে- এমন খবরের ভিত্তিতে অভিযান চালানো হয়। উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক চোরাকারবারীরা পুলিশের ওপর গুলি চালায়। পাল্টা গুলি চালানো হলে পালিয়ে যায় তারা। পরে ঘটনাস্থল থেকে আহত অবস্থায় জাহাঙ্গীরকে উদ্ধার করা হয়। হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। তার বিরুদ্ধে অন্তত ৭টি মামলা রয়েছে।

এদিকে টাঙ্গাইলে মাদক ব্যবসায়ীদের দু’পক্ষের গোলাগুলিতে একজন নিহত হয়।

অপরদিকে চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গায় ওল্টু মন্ডল (২৭) নামে এক যুবকের গুলিবিদ্ধ মরদেহ উদ্ধার হয়েছে। শনিবার সকাল পৌনে ১০টার দিকে আলমডাঙ্গা উপজেলা শহরের সাতকপাট এলাকা থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে থানা পুলিশ।

পুলিশ বলছে, নিহত ওল্টু আলমডাঙ্গার শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী। তার নামে থানাতে ১২টি মামলা রয়েছে। নিহত ওল্টু মন্ডল আলমডাঙ্গা উপজেলার গোবিন্দপুর গ্রামের মৃত মহাসিন আলির ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, শনিবার সকালে আলমডাঙ্গা রেল ষ্টেশনে কাছে ওল্টু মন্ডলের গুলিবিদ্ধ মরদেহ পড়ে থাকতে দেখা যায়। পরে খবর পেয়ে আলমডাঙ্গা থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে।

আলমডাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ আবু জিহাদ ফকরুল আলম খাঁন জানান, নিহত ওল্টু উপজেলার শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী। তাছাড়া তার শ্বাশুড়ি মিনি খাতুন পুলিশের মোস্ট ওয়ানটেড তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী। ওল্টুর বিরুদ্ধে ১২ টি মামলা রয়েছে বলে জানান তিনি।

চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপার মাহবুবুর রহমান জানান, মাদকের টাকা ভাগাভাগি নিয়ে ওল্টু মন্ডল খুন হতে পারেন। এ ব্যাপারে তদন্ত শুরু হয়েছে। তদন্তের পরই বিস্তারিত জানানো সম্ভব হবে।









Leave a reply