দৌলতদিয়া ঘাটে মানুষের ঢল, যানবাহনের দীর্ঘ লাইন

|

রাজবাড়ী প্রতিনিধি

প্রিয়জনের সাথে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি শেষে জীবিকার তাগিদে আবারও ঢাকায় ফিরছে কর্মজীবী মানুষ। ঈদের আগে নাড়ীর টানে ঘরে ফেরা এসব মানুষগুলো ছুটি শেষে রওনা হয়েছে ইট পাথরের শহর রাজধানী ঢাকায়। দেশের দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলের ২১ জেলার হাজার হাজার যাত্রী ও যানবাহন দৌলতদিয়া ঘাটে পদ্মা পাড়ি দিয়ে মানিকগঞ্জ জেলার পাটুরিয়ায় যাচ্ছে।

সেখান থেকে যানবাহনে ঢাকার গাবতলী পৌঁছাবে। শুক্রবার সকাল থেকেই তাই রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া ঘাটে ঢাকামুখী মানুষের উপচে পরা ভিড় দেখা গেছে। দুপুর গড়িয়ে বিকেল হতেই তা বেড়েছে কয়েকগুন।

শুক্রবার বিকেলে দৌলতদিয়া ফেরী ঘাটের জিরো পয়েন্ট থেকে প্রায় ৫ কিলোমিটার পর্যন্ত লম্বা হয়েছে যানবাহনের দীর্ঘ সারি। ফেরির সিরিয়ালে প্রহর গুনছে এসব গাড়ীর যাত্রীরা।

দৌলতদিয়া পাটুরিয়া নৌরুটে বর্তমানে ৩৩ টি লঞ্চ ও ১৯টি ফেরিতে চলছে যাত্রী ও যানবাহন পারাপার।

রাজবাড়ী থেকে ঢাকাগামী যাত্রী মোঃ সাজ্জাদ হোসেন বলেন, ঈদের ছুটি শেষে ঢাকার উত্তরায় ফিরছি। ঈদের সপ্তাহ খানেক পার হলেও এখনও অনেক ভীড়।

কুষ্টিয়া জেলার ভেড়ামারার যাত্রী মোঃ পলাশ বলেন ,দৌলতদিয়া ঘাটে যাত্রীদের প্রচণ্ড ভিড়। রোদ আর গরমে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে কষ্ট করেই ঢাকায় ফিরতে হচ্ছে।

ফরিদপুর থেকে ঢাকাগামী বাস যাত্রী মোঃ কামরুল হাসান বলেন, ঈদের ছুটি শেষে শুক্রবার ঢাকায় ফিরছি। দুপুরে দৌলতদিয়া ঘাটে এসে দেখলাম ঢাকামুখী যানবাহনের দীর্ঘ সারি।

দৌলতদিয়া লঞ্চঘাটের সুপারভাইজার মোঃ মোফাজ্জেল হোসেন জানান, দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে যাত্রী পারাপারের জন্য ৩৩ টি লঞ্চ চলাচল করছে। ধারণ ক্ষমতা অনুসারেই সিরিয়াল মোতাবেক লঞ্চে যাত্রী উঠানো হচ্ছে।

দৌলতদিয়া ঘাটে কর্ত্যবরত বিআইডব্লিউটিসি’র ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) মোঃ শফিকুল ইসলাম জানান, বর্তমানে দৌলতদিয়া পাটুরিয়া নৌরুটে ১৯টি ফেরী যানবাহন ও যাত্রী পারাপার করছে। এর মধ্যে রো রো (বড়) ফেরি নয়টি, কে-টাইপ (মাঝারি) চারটি ও ইউটিলিটি ফেরি রয়েছে ছয়টি। সময়ের সাথে সাথে ফেরির সিরিয়ালের অপেক্ষায় থাকা যানবাহনের লাইন কমে আসবে।

দৌলতদিয়া লঞ্চ ঘাটে কর্তব্যরত রাজবাড়ী ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের সাব অফিসার মো. ইউসুফ মোল্লা জানান, ঈদের ছুটি শেষে দৌলতদিয়া লঞ্চ ঘাটে ঢাকাগামী যাত্রীদের লঞ্চে উঠানামায় সহযোগিতা করতে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের ডুবুরীসহ আটজন সদস্য সার্বক্ষণিক নিয়োজিত রয়েছে।

রাজবাড়ী রোভার স্কাউটস দলের সিনিয়র রোভারমেট গোলাম রব্বানী জানান, গত বৃহস্পতিবার দৌলতদিয়া ঘাটে ঢাকামুখী যাত্রীদের চাপ ছিলো। শুক্রবার তা বেড়েছে কয়েকগুন। যাত্রীদের লঞ্চে উঠানামায় আমরা রোভার সদস্যরা সহযোগিতা করছি।

রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার আসমা সিদ্দিকা মিলি জানান,পণ্যবাহী ট্রাক চলাচল শুরু করায় যানবাহনের চাপ বেড়েছে। সিরিয়াল মেনে সবাই কে পার করা হচ্ছে। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর বিপুল সংখ্যক সদস্য যাত্রীদের দুর্ভোগ কমাতে কাজ করে যাচ্ছে।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply