খুলনা থেকে নিখোঁজ রহিমা বেগমকে জীবিত উদ্ধার

|

ছবি: সংগৃহীত

খুলনার দৌলতপুরের নিজ বাড়ি থেকে নিখোঁজের ২৭ দিন পর গৃহবধূ রহিমা বেগমকে অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) রাতে ফরিদপুরের বোয়ালমারি এলাকার সৈয়দপুর গ্রামের একটি বাড়ি থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়। গৃহবধূকে উদ্ধারের ঘটনার পর সব নাটকীয়তার অবসান হলো।

গত ২৭ আগস্ট রাতে নগরীর দৌলতপুর পাবলার নিজ বাড়ি থেকে নিখোঁজ হন রহিমা বেগম। গৃহবধূর সন্তানরা তাদের মাকে গুম করা হয়েছে এই মর্মে দৌলতপুর থানায় চার প্রতিবেশীকে আসামি করে মামলা করে।

এরপর থেকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে রহিমা বেগমের ছোট মেয়ে মরিয়ম মান্নান বিভিন্ন সময় স্ট্যাটাস দিয়ে তার মাকে গুমের খবর জানাতে থাকে। সবশেষ গত ২৩ সেপ্টেম্বর ময়মনসিংহে এক নারীর গলিত লাশের ছবি দেখে তাকে ‘মা ‘ হিসেবে দাবি করে মেয়ে মরিয়ম।

খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের ডেপুটি কমিশনার মোল্লা জাহাঙ্গীর আলম জানান, দৌলতপুর থানা পুলিশের একটি দল শনিবার রাত পৌনে এগারোটায় বোয়ালমারী থানা পুলিশের সহায়তায় সৈয়দপুর গ্রামের আবদুল কুদ্দুসের বাড়ি থেকে মরিয়মকে উদ্ধার করে। সেখানে তিনি আত্মগোপনে ছিলেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।

উদ্ধারের পর রহিমা বেগমকে নিয়ে খুলনার দৌলতপুর থানার উদ্দেশে রওয়ানা দিয়েছে পুলিশ।

/এনএএস





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply