বগুড়ায় প্রকল্প নিয়ে বিরোধের জেরে চেয়ারম্যানের দিকে এমপির পিস্তল তাক

|

বগুড়ার শাহজাহানপুরে স্থানীয় সংসদ সদস্য রেজাউল করিম বাবলুর অনুসারী ও উপজেলা চেয়ারম্যান সোহরাব হাসান ছান্নুর অনুসারী যুবলীগ নেতাকর্মীদের মধ্যে হাতাহাতি ও মারপিটের ঘটনা ঘটেছে।

বুধবার (২১ সেপ্টেম্বর) উপজেলা পরিষদের বারান্দায় এ ঘটনার সময় সভাকক্ষ থেকে বেরিয়ে এসে পিস্তল তাক করেন সংসদ সদস্য। ব্যক্তিগত সহকারির ওপর হামলার অভিযোগও তোলেন তিনি। তবে এমপির বিরুদ্ধে পাল্টা অভিযোগ তুলে তার কুশপুত্তলিকা দাহসহ তাকে উপজেলায় অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেছে স্থানীয় আওয়ামী লীগ।

বুধবার বগুড়ার শাহজাহানপুরে উপজেলা পরিষদের বারান্দায় দু’পক্ষের হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। একদিকে বগুড়া-৭ আসনের সংসদ সদস্য রেজাউল করিমের ব্যক্তিগত সহকারিসহ অন্যান্য অনুসারীরা। আর অন্যদিকে উপজেলা যুবলীগের নেতাকর্মীরা।

উপজেলা চেয়ারম্যান জানান, স্থানীয় যুবলীগের এক নেতার কাছ থেকে কয়েক লাখ টাকা নিয়েও সংসদ সদস্য তাকে টিআর প্রকল্পের কাজ দেননি, এ নিয়েই বাকবিতণ্ডার সূত্রপাত। এ ঘটনার সমাধান করতে গেলে তার দিকেই পিস্তল তাক করেন সংসদ সদস্য।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ও উপজেলা শ্রমিকলীগের সাধারণ সম্পাদক নুরন্নবী বলেন, ওনাকে তিন লক্ষ টাকার বরাদ্দ দেয়। কিন্তু, উনি যে ৩৫ হাজার টাকা পান সেটা চাওয়াকে কে কেন্দ্র করেই এই অপ্রীতিকর ঘটনা।

বগুড়া শাজাহানপুর উপজেলা চেয়ারম্যান সোহরাব হাসান ছান্নু বলেন, আমি এমপি সাহেবকে বোঝানোর চেষ্টা করি যে উনি এখানে এসেছেন, কখন এসেছেন এগুলো আমাদেরকে বলতে পারতেন। যুবলীগের ছেলেপেলের সাথে হইহল্লা না করাই ভাল। আপনি সিনিয়র মানুষ, আসেন বসে অক্তহা বলি। কিন্তু উনি যে কী মনে করে পকেট থেকে পিস্তল বের করে পায়ের দিকে তাক করলেন।

তবে, সংসদ সদস্যে্র দাবি যুবলীগ নেতার সাথে কোনো আর্থিক লেনদেনে যুক্ত নন তিনি। আত্মরক্ষায় অস্ত্র বের করার কথা স্বীকার করেন তিনি।

বগুড়া-৭ আসনের সংসদ সদস্য রেজাউল করিম বাবলু বলেন, আমার পিএকে রক্তাক্ত ও জখম করেছে। আমার ড্রাইভারকেও মেরেছে। তাদেরকে রক্তাক্ত করে যখন আমার দিকে অগ্রসর হচ্ছিলো তখন আত্মরক্ষার্থে বন্দুক বের করতে হয়।

এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) বিকেলে মাঝিরা বাজার এলাকায় সমাবেশ করে এমপি রেজাউল করিম বাবলুকে উপজেলায় অবাঞ্ছিত ঘোষণা করে স্থানীয় আওয়ামী লীগ, পোড়ানো হয় তার কুশপুত্তলিকা।

সমাবেশে শাজাহানপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তালেবুল ইসলাম তালেব বলেন, আমরা তাকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করলাম। শাহজাহানপুরে তোমাকে আমরা দেখা মাত্র প্রতিহত করবো।

প্রসঙ্গত, গত সংসদ নির্বাচনে বগুড়া-৭ আসন থেকে নির্বাচিত হন রেজাউল করিম বাবলু। এরপর থেকেই নিয়োগ, প্রকল্পের অনিময় এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে লাইসেন্স করা পিস্তল প্রদর্শন করে আলোচনায় আসেন তিনি।

/এসএইচ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply