বাংলাদেশে বিপুল মার্কিন বিনিয়োগ চাইলেন প্রধানমন্ত্রী

|

বাংলাদেশ ২০২৬ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের এবং ২০৪১ সালের মধ্যে একটি উন্নত দেশে পরিণত হবে। বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) ইউএস-বাংলাদেশ বিজনেস কাউন্সিল আয়োজিত উচ্চস্তরের গোলটেবিল বৈঠকে এ প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অর্থনৈতিক উন্নয়নের পরিকল্পনা বাস্তবায়নে মার্কিন বিনিয়োগকারীদের বাংলাদেশে নবায়নযোগ্য জ্বালানি, জাহাজ নির্মাণ, অটোমোবাইল এবং ফার্মাসিউটিক্যালসসহ বিভিন্ন খাতে বিনিয়োগের আহ্বান জানান তিনি। মার্কিন বিনিয়োগকারীদের জন্য প্রয়োজনে ডেডিকেটেড বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল গঠনের প্রস্তাবও দেন প্রধানমন্ত্রী।

এসময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের উদার বিনিয়োগ নীতি রয়েছে, যার মধ্যে রয়েছে বিদেশি বিনিয়োগ সুরক্ষা, কর অবকাশ, রয়্যালটির রেমিটেন্স, অনিয়ন্ত্রিত প্রস্থান নীতি এবং পুরোপুরি প্রস্থানের সময় লভ্যাংশ ও মূলধন নিয়ে যাওয়ার সুবিধা। বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানে প্রায় একশ বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল (এসইজেড) এবং বেশ কয়েকটি হাইটেক পার্ক স্থাপন করা হয়েছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশে ৬ লাখেরও বেশি ফ্রিল্যান্সিং আইটি পেশাদার রয়েছে, ফলে, বাংলাদেশ আইটি বিনিয়োগের জন্য সঠিক গন্তব্য।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশে ৬ লাখেরও বেশি ফ্রিল্যান্সিং আইটি পেশাদার রয়েছে। সুতরাং আইটি বিনিয়োগের জন্য সঠিক গন্তব্য বাংলাদেশ। তাছাড়া প্রতিযোগিতামূলক মজুরিতে দক্ষ মানবসম্পদ বাংলাদেশে একটি অতিরিক্ত সুবিধা। এমনকি যদি প্রয়োজন হয়, আমরা মার্কিন বিনিয়োগকারীদের জন্য একটি ডেডিকেটেড বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলের প্রস্তাব করতে পরলে খুশী হবো। তিনি আস্থা প্রকাশ করে বলেন, ইউএস-বাংলাদেশ বিজনেস কাউন্সিল এক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে।

২০২১-২২ সালে যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশের রফতানি ছিল প্রায় ১০ দশমিক ৪২ বিলিয়ন মার্কিন ডলার এবং আমদানি ছিল প্রায় ২ দশমিক ৮ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।

/এডব্লিউ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply