ছাত্রীকে উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় স্কুল দফতরিকে জখম, বখাটে গ্রেফতার

|

সিনিয়র রিপোর্টার, সিরাজগঞ্জ:

সিরাজগঞ্জের তাড়াশে স্কুলছাত্রীকে উত্ত্যক্তর প্রতিবাদ করায় বোয়ালিয়া সরকারি প্রাথমিক ও উচ্চ বিদ্যালয়ের দফতরি সুলতান মাহমুদকে এন্টিকাটার দিয়ে আঘাত করে আহত করেছে শাফি তালুকদার নামে এক বখাটে।

এ ঘটনায় শিক্ষকসহ এলাকার লোকজন শাফি তালুকদারকে আটকের পর তাড়াশ থানা পুলিশের নিকট সোর্পদ করে। অপরদিকে আহত সুলতান মাহমুদকে উদ্ধার করে তাড়াশ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে তাকে সিরাজগঞ্জ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) উপজেলার মাধাইনগর ইউনিয়নের বোয়ালিয়া সরকারি প্রাথমিক ও উচ্চ বিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে। এ বিষয়ে সুলতান মাহমুদের পিতা আবু বক্কর সরকার বাদী হয়ে তাড়াশ থানায় হত্যা ও ইভটিজিং ধারায় মামলা করেছে।

প্রত্যক্ষদর্শী শিক্ষক আব্দুল হামিদ বলেন, বোয়ালিয়া গ্রামের সেলিম তালুকদারের বখাটে ছেলে শাফি তালুকদার প্রায় সময়ই বোয়ালিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের এক ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করতো। বৃহস্পতিবার দুপুরে ওই বখাটে উক্ত ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করার জন্য স্কুলে যায় এবং তাকে উদ্দেশ্য করে বাজে কথা বলে। এ সময় বোয়ালিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দফতরি সুলতান মাহমুদ প্রতিবাদ করে। এতে ওই বখাটে ক্ষিপ্ত হয়ে তার প্যান্টের পকেটে থাকা ছোট এন্টিকাটার দিয়ে সুলতানের পেটের মাঝে দিয়ে টান দেয়। এতে সুলতানের পেট কেটে যায়।

সুলতান মাহমুদের বাবা আবু বক্কার বলেন, শফি আমার ছেলেকে হত্যার উদ্দেশ্যে এ ঘটনাটি ঘটিয়েছে। শিক্ষক ও ছাত্ররা আমার ছেলেকে বাঁচিয়েছে। পুলিশ খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থল থেকে এন্টিকাটার উদ্ধার ও শাফিকে গ্রেফতার করেছেন। এলাকাবাসী এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে দ্রুত বখাটের শাস্তি দাবি করেছেন। আমিও আমার ছেলেকে যে আঘাত করেছে তার বিচার চাই।

তাড়াশ থানার অফিসার ইনচার্জ মো. শহিদুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, লম্পট শাফিকে খবর পাওয়ামাত্রই তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ ঘটনায় সুলতান মাহমুদের পিতা আবু বক্কর সরকার তাড়াশ থানায় বাদী হয়ে ইভটিজিং ও হত্যার উদ্দেশ্য উল্লেখ করে মামলা দায়ের করেছেন। শফিকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হবে।

বিদ্যালয়ের সভাপতি জহুরুল মাস্টার বলেন, শাফি তালুকদার প্রায় একটি মেয়েকে উত্ত্যক্ত করতো। এ ঘটনায় এলাকায় ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

জেডআই/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply