বাগেরহাটে নিখোঁজের ২ বছর পর ইজিবাইক চালকের বস্তাবন্দি মরদেহ উদ্ধার

|

বাগেরহাট প্রতিনিধি:

নিখোঁজের দীর্ঘ দুই বছর পর আসামিদের দেখিয়ে দেয়া স্থান থেকে মাটি চাপা দেয়া মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) বেলা ৩টার দিকে বাগেরহাট জেলার মোল্লাহাট উপজেলার শাসন গ্রাম থেকে নিখোঁজ বিদেশ ফেরত ইজিবাইক চালক রানা শরিফের কঙ্কাল উদ্ধার করে মোল্লাহাট থানা পুলিশ।

বাগেরহাট জেলা পুলিশের অনলাইন গ্রুপে দেয়া প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, জেলার মোল্লাহাট উপজেলার শাসন গ্রামের শরিফ আহম্মেদ বাচ্চুর ছেলে রানা শরিফের সাথে একই এলাকার জুয়েল মোল্লার ব্যক্তিগত বিরোধ ছিলো। সেই দ্বন্দ্বের জেরে জুয়েল তার লোকজন নিয়ে ২০২০ সালের ২৮ সেপ্টেম্বর রাত আনুমানিক ৮টা থেকে ৯টার মধ্যে রানা শরিফকে পরিকল্পিতভাবে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে খুন করে মাটিতে পুতে রাখে।

এরপর নিহতের পিতা শরিফ আহম্মেদ বাচ্চু একই বছরের ৪ অক্টোবর মোল্লাহাট থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন। এরই সূত্র ধরে পুলিশ আধুনিক তথ্য প্রযুক্তি ব্যাবহারের মাধ্যমে আসামিদের শনাক্ত করে। প্রাথমিকভাবে শনাক্ত ৫ আসামিকে আটক ব্যাপক জিজ্ঞাবাদে তাদের দেয়া তথ্য ও চিহ্নিত জায়গা খুঁড়ে নিখোঁজের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়।

মোল্লাহাট থানার ওসি সৌমেন দাস মুঠোফোনে জানান, পুলিশ প্রাথমিকভাবে আটককৃত আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদ করলে তাদের দেয়া তথ্য মতে রানার মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। আটককৃতরা জানিয়েছে, মাদক ব্যবসায়ী এবং হত্যা মামলাসহ একাধিক মামলার আসামি জুয়েলের সাথে নিহত রানা শরিফের ব্যক্তিগত বিরোধ ছিল। সেই বিরোধের সূত্র ধরে জুয়েল তার অন্য সহযোগীদের নিয়ে তাকে খুন করে মাটিতে পুতে রাখে । ওসি আরও জানান, বাকি আসামিদের ধরতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

আটককৃত আসামিরা হলো, হলো শাসন গ্রামের আবু মোল্লার ছেলে জুয়েল মোল্লা, মোস্তফা চৌধূরীর ছেলে মো. হোসাইন চৌধূরী, ইউসুফ চৌধূরীর ছেলে মো. নাদিম চৌধূরী, হেদায়েত চৌধূরীর ছেলে মো. শহিদুল চৌধূরী ও এনামুল ফকিরের ছেলে রুহুল আমিন ফকির।

এটিএম/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply