‘পাকিস্তান আমল ভালো ছিল’- এ কেমন মানসিক প্রতিবন্ধিতা?

|

মোহাম্মদ এ আরাফাত:

বাংলাদেশ সকল সমস্যার সমাধান করে ফেলেছে, এ কথা কেউ বলবে না। পাশ্চাত্যের উন্নত দেশগুলোও ‘সকল’ সমস্যার সমাধান করতে পারেনি। বাংলাদেশ তো এখনও ‘উন্নত’ দেশের জায়গায়ই পৌঁছেনি। আমরা স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশ হয়েছি। নিম্ন আয়ের দেশ থেকে নিম্ন-মধ্য আয়ের দেশ হয়েছি। বিদেশিদের ঋণের ও দানের টাকার পরিবর্তে পদ্মাসেতুর মতো বড় প্রকল্প নিজস্ব অর্থায়নে করতে পারার যোগ্যতা ও সক্ষমতা অর্জন করেছি। কিন্তু এখনও অনেক দূরের পথ পাড়ি দেয়া বাকি। সব ঠিকঠাক থাকলে ২০৪১ সালে হয়তো উন্নত দেশ হবো। কিন্তু তারপরেও সকল সমস্যার সমাধান হবে না। কারণ, তা হয় না। তবে, ২০ বছর আগের থেকে যেমন তুলনামূলকভাবে আমরা ভালো আছি; তেমনি ২০৪১ সালে উন্নত দেশ হতে পারলে বর্তমানের থেকে আরও ভালো থাকবে দেশের মানুষ।

২০ বছর আগের বাংলাদেশে অনেক মানুষের নুন আনতে পান্তা ফুরাতো। আর এখন আমরা এই বিশ্ব মন্দার মধ্যেও খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ। খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ হলেও পুষ্টিতে স্বয়ংসম্পূর্ণ হতে পারিনি। অনেক ক্ষেত্রেই এখনও ঘাটতি আছে।

কিছুদিন আগে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছিলেন, বাংলাদেশে সবাই বেহেশতে আছে। আমি ব্যক্তিগতভাবে তার এই বক্তব্যের সমালোচনা করেছি। কারণ, কথাটি সর্বৈব মিথ্যা। বর্তমান বাস্তবতায় বিশ্বের কোনো দেশই বেহেশতে নেই। এমনকি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীও একদিন পরেই সুস্পষ্টভাবে বলেছেন, জ্বালানির দাম বৃদ্ধির ফলে নিত্যপণ্যের দামও বেড়েছে, মানুষের কষ্ট হচ্ছে। অনেক ক্ষেত্রেই চ্যালেঞ্জ আছে; আবার উন্নয়নও হয়েছে এবং হচ্ছে।

দারিদ্র্য বিমোচন ও টেকসই উন্নয়ন বিষয়ে বিশ্বের শ্রেষ্ঠ অর্থনীতিবিদগণের একজন এবং বিশিষ্ট উন্নয়ন অর্থনীতিবিদ জেফ্রি স্যাক্স, যিনি দুই দশক ধরে হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপনা করেছেন এবং বর্তমানে কলাম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত আছেন। তিনি বাংলাদেশের উন্নয়নে শেখ হাসিনার অর্জনের প্রশংসা করেছেন। তিনি বলেন, ২০১৫ থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশ বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই অগ্রগতিতে বিশ্বে প্রথম হয়েছে।

সংসদে আওয়ামী লীগের একজন মন্ত্রী বলেছিলেন, মোট জিডিপির আকারে আমরা সিঙ্গাপুরকে ছাড়িয়ে গেছি। কথা সত্য, কিন্তু মাথাপিছু আয়ে আমরা সিঙ্গাপুর থেকে অনেক পিছিয়ে এখনও। সিঙ্গাপুর উন্নত দেশ, আমরা সবেমাত্র উন্নয়শীল হওয়ার পথে। যদিও অনেকে না বুঝেই এ বিষয় নিয়ে ট্রোল করে। করোনা মহামারি ও যুদ্ধের বাস্তবতায়, আজকে বিশ্ব মন্দার মধ্যে পৃথিবীর উন্নত দেশগুলোও জ্বালানি ও দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতিতে হিমশিম খাচ্ছে। এ অবস্থায় বাংলাদেশ চ্যালেঞ্জগুলো মোকাবেলা করছে। গত ১৩/১৪ বছরে অর্থনীতি শক্ত ভিত্তির উপরে না দাঁড়ালে এই চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করা অসম্ভব হয়ে যেত।

যাই হোক, শত প্রতিকূলতার মধ্যেও দেশের উন্নয়ন হচ্ছে। কিন্তু কিছু মানুষের মানসিকতার উন্নয়ন হচ্ছে না! যদিও পাকিস্তানের থেকে সকল অর্থনৈতিক সূচকে বাংলাদেশ এগিয়ে, তারপরও কিছু লোক মনে করে পাকিস্তানই নাকি ভালো ছিল। পাকিস্তানের শিক্ষিত শ্রেণি যদিও কিছুদিন আগেও আকুতি করেছে পাকিস্তানকে অন্তত বাংলাদেশের মতো বানিয়ে দিতে। আর, বাংলাদেশের মানসিক প্রতিবন্ধি কিছু লোক উল্টো কথা বলছে। দুঃখজনক!

লেখক: চেয়ারম্যান, সুচিন্তা ফাউন্ডেশন।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply