বলিউড তারকাদের আলোচিত বিবাহ-বহির্ভূত সম্পর্ক

|

ছবি: সংগৃহীত

সম্প্রতি মুক্তি পেয়েছে ‘ফ্যাবুলাস লাইভস অব বলিউড ওয়াইভস’ সিরিজের দ্বিতীয় সিজন। এ সিরিজেই অভিনেতা সঞ্জয় কাপুরের স্ত্রী মাহীপ কাপুর জানিয়েছেন তার ব্যক্তিগত জীবনের কথা। জানান, সঞ্জয় নাকি বিবাহ-বহির্ভূত সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছিলেন। মাহীপের কথার জেরে বলিউড পাড়ায় নতুন চর্চা শুরু হয়েছে। তবে সঞ্জয়ই তো আর প্রথম নন। এর আগেও বলিউডের বহু তারকা বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কে জড়িয়েছেন।

বলিউডের ‘গ্রিক গড’ হৃতিক ২০০০ সালে সুজান খানকে বিয়ে করেন। তার ১০ বছর পর মুক্তি পায় হৃতিক অভিনীত সিনেমা ‘কাইটস’। সে সিনেমার অভিনেত্রী বারবারা মোরির সঙ্গে সম্পর্কে জড়ান হৃতিক। ঘটনা এমন পর্যায়ে পৌঁছে যে, সুজান নিজের বাবা-মার সাথে থাকার সিদ্ধান্ত নেন। আর সেখান থেকেই বিচ্ছেদ ঘটে তাদের।

এক সময় বলিউডে চর্চা ছিল, সাইফ আলি খান তার চেয়ে বয়সে বড় মহিলাদের প্রতিই বেশি আকৃষ্ট। আনু আগারওয়াল দু বছরের বড় হলেও, মুনমুন সেন ছিলেন তার মায়ের বয়সী! ১৯৯১ সালে ১৩ বছরের বড় অভিনেত্রী অমৃতা সিংকে বিয়ে করেন সাইফ। এক সময় ইটালির রোসা ক্যাটালানো নামের এক মডেলের সাথেও আলাপ হয় তার। সেই সম্পর্ক তার ১৪ বছরের সাংসারিক জীবনে ইতি টানে। আর এরপরই বিয়ে করেন কারিনা কাপুরকে।

‘হাদ কার দি আপনে’ সিনেমার সেটে গোবিন্দর সাথে ঘনিষ্ঠতা বাড়ে মিষ্টি মেয়ে রানি মুখার্জির। দুই তারকার সম্পর্ক গোবিন্দের বিবাহিত জীবনেও প্রভাব ফেলে। স্ত্রী সুনীতার সঙ্গে সম্পর্ক যখন বিচ্ছেদের দোরগোড়ায়, সে সময়ই রানির সাথে দূরত্ব বাড়িয়ে নেন গোবিন্দ। রানির সঙ্গে জড়িয়েছে আদিত্য চোপড়ার নামও। আদিত্য তার কলেজের বান্ধবী পায়েলকে বিয়ে করেছিলেন। রানির সঙ্গে সম্পর্ক ছিল বলেই আদিত্য-পায়েলের সম্পর্কেও টান পড়ে।

২০০৪ সালে ‘অ্যায়তরাজ’ সিনেমার শ্যুটিং চলাকালে প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার সঙ্গে ঘনিষ্ঠ হন বলিউডের ‘খিলাড়ি’ অক্ষয়। এর রেশ ধরে টুইংকেল খান্না নাকি জনসমক্ষে চড়ও মারেন অক্ষয়কে। শুধু অক্ষয়ই নয়, প্রিয়াঙ্কার নাম জড়ায় ‘কিং খান’ শাহরুখের সাথেও।

এদিকে, অর্জুন কাপুরের সাথে সালমান খানের বোন অর্পিতার সম্পর্ক সেই স্কুল জীবন থেকে। এক সময় সালমান খানের ভাই আরবাজের স্ত্রী মালাইকা অরোরার সাথে সম্পর্কে জড়ান অর্জুন। শেষ পর্যন্ত অর্জুনের জন্য আরবাজের সাথে সম্পর্ক শেষ করেন মালাইকা।

পুরোনো জামানাতেও বলিউডের অনেক অভিনেতা বিবাহ-বহির্ভূত সম্পর্কে জড়িয়েছেন। অমিতাভ-রেখার প্রেম নিয়ে মুখর ছিল পুরো ভারত। বিয়ে না হলেও রেখা সিদুঁরও পড়তেন অমিতাভের জন্য। বলা হয়, এ সম্পর্ক চলাকালে যশ চোপড়ার তৈরি’ সিলসিলা’ সিনেমার গল্প অমিতাভ-রেখা-জয়া বচ্চনের তৎকালীন বাস্তব অবস্থারই চিত্র।

বলিউডের ‘ডিস্কো ডান্সার’ মিঠুন চক্রবর্তী এবং শ্রীদেবীর অভিনয় সূত্রেই আলাপ। সে সময় তাদের বিয়ের কথাও জানতেন অনেকেই। কিন্তু মিঠুনের স্ত্রী যোগিতা অন্তঃসত্তা হয়ে পড়ায় শ্রীদেবীর সাথে সম্পর্কের ইতি টানেন মিঠুন। প্রযোজক বনি কাপুরও শ্রীদেবীর সাথে বিবাহ-বহির্ভূত সম্পর্কে জড়ান। অভিনেত্রী যখন সাত মাসের অন্তঃসত্ত্বা, তখন বনির সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধেন বনি।

বলিউডে পা রাখারও অনেক আগে টিনএজার ধার্মেন্দ্র বিয়ে করেন প্রকাশ কওরকে। প্রায় দেড় দশক পর তার জীবনে আসেন ড্রিম গার্ল হেমা মালিনি। ১৯৮০ সালে তারা বিয়ের সিদ্ধান্ত নেন। এছাড়া ৭০ দশকে আরও এমন পরকীয়ার গুঞ্জনে নাম এসেছে শাম্মি কাপুর-মুমতাজ, শত্রুঘ্ন সিনহা-রিনা রায়, জিনাত আমান-সঞ্জয় খান এবং পারভিন ববি-মহেশ ভাট প্রমুখের।

সিনেমায় তারকাদের ভালোবাসার সফল পরিণতি দেখেই অভ্যস্ত সবাই। কিন্তু বলিউডের মতো ইন্ডাস্ট্রিতে অনেক ভালোবাসাই পায়নি কোনো পরিণতি। আলোচিত-সমালোচিত হয়েছে লোকের মুখে মুখে, আর তারকাদের বুকের কোথাও না কোথাও বিঁধে আছে কাঁটার মতো।

/এসএইচ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply