সমালোচনা বন্ধে ড্রাগ টেস্ট করালেন ফিনল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী

|

সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের মুখোমুখী ফিনল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী সানা মারিন।

পার্টিতে বন্ধুদের সাথে নাচগানের ভিডিও ভাইরালের পর সৃষ্ট ব্যাপক বিতর্ক ও আলোচনার মুখে নিজের ড্রাগ টেস্টের কথা জানালেন ফিনল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী সানা মারিন। খবর বিবিসির।

শুক্রবার (১৯ আগস্ট) এক সংবাদ সম্মেলনে ড্রাগ টেস্টের কথা জানিয়ে সানা মারিন বলেন, সমালোচকদের দাবি খুবই অন্যায্য তবুও আমি ড্রাগ টেস্ট করিয়েছি।

সম্প্রতি ফাঁস হওয়া এক ভিডিওতে বন্ধুদের সঙ্গে নাচতে ও গাইতে দেখা যায় সানা মারিন। ভিডিওটি প্রাথমিকভাবে ইনস্টাগ্রাম স্টোরিজে আপলোড করা হয়েছিল। পরে এটি ফাঁস হয় এবং ভাইরাল হয়ে যায়। ভিডিওটি ফাঁস হওয়ার পর বিরোধীরা তার তীব্র সমালোচনা শুরু করেছে। বিরোধীদলীয় এক নেতা সানা মারিনের মাদক পরীক্ষার দাবিও করেছেন।

সানা মারিন বলেন, জীবনে আমি কখনও মাদক সেবন করিনি। কিন্তু প্রকাশিত ভিডিও ফুটেজের প্রেক্ষিতে সৃষ্ট আলোচনা বন্ধে আমার উদ্যোগী হওয়া জরুরি ছিল, তাই ড্রাগ টেস্ট করিয়েছি।

জানা গেছে, সানার নাচের ভিডিও ভাইরাল হওয়া ওই পার্টিতে বেশ কিছু সুপরিচিত ফিনিশ ব্যক্তিত্বকে দেখা গেছে। তাদের মধ্যে সানা মারিনের রাজনৈতিক দল সোশ্যাল ডেমোক্রেটিক পার্টির সংসদ সদস্য ইলমারি নুরমিনেন ছাড়াও দেশটির বেশকিছু জনপ্রিয় গায়ক, প্রভাবশালী ব্যক্তিত্ব, ইউটিউবার-সোশ্যাল মিডিয়া ইনফ্লুয়েন্সার এবং রেডিও ও টিভি উপস্থাপকরা ছিলেন বলে জানা গেছে।

প্রসঙ্গত, বিশ্বের সবচেয়ে কমবয়সী প্রধানমন্ত্রী হিসেবে তিনি দায়িত্ব গ্রহণ করেছিলেন সানা মারিন। তাই কোনো ধরনের রাখঢাক না রেখেই পার্টিতে যোগদানের কথা বরাবরই স্বীকার করে আসছেন তিনি। গত বছরও কোভিড বিধিমালা উপেক্ষা করে ক্লাবে যাওয়ার জন্য ব্যাপকভাবে সমালোচিত হন সানা। পরে এজন্য জনসম্মুখে ক্ষমা চাইতে হয় তাকে। সম্প্রতি তাকে ‘বিশ্বের সবচেয়ে আমুদে প্রধানমন্ত্রী’ হিসেবে আখ্যা দিয়েছে জার্মান গণমাধ্যম বিল্ড।

আরও দেখুন: পার্টিতে নাচগান করায় ব্যাপক সমালোচিত ফিনল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী

/এসএইচ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply