যেকোনো সময় কিছু শরণার্থী ফেরাতে প্রস্তুত সু চি সরকার!

|

মিয়ানমারের রাষ্ট্রীয় উপদেষ্টা  অং সান সু চি বলেছেন রাখাইন প্রদেশে সৃষ্ট সংকট নিয়ে সরকারের বিরুদ্ধে যে সব সমালোচনা হচ্ছে তা খতিয়ে দেখা হবে। নিকি এশিয়ান রিভিউকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে রোহিঙ্গা সংকটের কারণে বিশ্বজুড়ে নিন্দিত এই নেত্রী বলেন, যে শক্তি এই ৪ লাখ ১০ হাজার রাষ্ট্রহীন মুসলমানদের দেশত্যাগে বাধ্য করেছে তিনি সেটা খুঁজে বের করবেন।

এ সময় সু চি জানান, কিছু শরণার্থীকে যেকোনো সময় ফিরিয়ে আনার জন্য  যাচাই-বাছাই প্রক্রিয়া চালু করতে তার সরকার প্রস্তুত।

রাখাইন সংকট মিয়ানমারের অর্থনৈতিক পরিস্থিতিতে প্রভাব ফেলতে পারে এমন আশঙ্কা প্রকাশ করে সু চি বলেন, মিয়ানমার সরকার অর্থনৈতিক সংস্কারে পদক্ষেপ নিচ্ছে। বিশেষত, কৃষি ও অবকাঠামোগত উন্নয়নে জোর দিচ্ছে।
তার দেশ থেকে দারিদ্র্য দূর করতে এ ধরনের আর্থিক সংস্কারের প্রয়োজনীয়তার কথা বলেন সু চি।

জাতিসংঘসহ বিশ্বনেতারা সু চির বিরুদ্ধে জাতিগত নিধনে সমর্থনের অভিযোগ তুলেছেন। মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর অভিযান বন্ধে সু চি’র নিস্পৃহতার দিকে আঙ্গুল তুলেছেন। এ প্রসঙ্গে সু চি বলেন, কোনো কিছুই অবাক হওয়ার মতো নয়। কারণ, অন্য সব মতামতের মতো বিশ্ব মতামতও বদলায়।

গত ২৫ আগস্ট মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে নিরাপত্তা চৌকিতে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটে বলে দাবি করে মিয়ানমার। আরসা নামের একটি সংগঠন এই হামলার দায়ও স্বীকার করে। এ প্রেক্ষিতে রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গাদের ওপর শুরু হয় অব্যাহত দমন-পীড়ন। এ পযর্ন্ত চার ৪ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে।

যমুনা অনলাইন: টিএফ









Leave a reply