পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকত ইজারা দিতে যাচ্ছে সিডিএ

|

২৫ বছরের জন্য চট্টগ্রামের অন্যতম প্রধান পর্যটন কেন্দ্র পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকত বেসরকারি খাতে ইজারা দিতে যাচ্ছে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ, সিডিএ। যদিও পর্যটকদের জন্য প্রবেশ ফি নির্ধারণ করেও সবার বিরোধিতায় এ শর্ত বাদ দিয়েছে সংস্থাটি। অপূর্ব নৈসর্গিক সৌন্দর্যমণ্ডিত উন্মুক্ত সাগর পাড় ইজারার সিদ্ধান্তে ক্ষুব্ধ চট্টগ্রামের মানুষ।

সৈকতের ৭ কিলোমিটার অংশ বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় অর্থাৎ ইজারা দিয়ে নতুন আঙ্গিকে পর্যটন জোন গড়ে তোলার পরিকল্পনা করছে সিডিএ। প্রস্তাবনা ছিলো, ৭শ মিটারের মূল সৈকতে প্রবেশে পর্যটকদের গুণতে হবে প্রবেশ ফি। যা নিয়ে আপত্তি নগর পরিকল্পনাবিদ ও বিশিষ্টজনদের। পরিকল্পিত চট্টগ্রাম ফোরামের চেয়ারম্যান ড. মু. সিকান্দার খান আক্ষেপ নিয়ে বললেন, সৈকতে মানুষের নাগরিক অধিকার ক্রমশ সংকুচিত হয়ে পড়ছে। নিজের সমুদ্র স্পর্শ করতেও মানুষকে টাকা গুণতে হবে!

চট্টগ্রামের বিভিন্ন শ্রেণীপেশার মানুষের বিরোধিতায় এমন সিদ্ধান্ত পাল্টেছে সিডিএ। বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় অর্থাৎ ইজারা দেয়া হলেও বাদ দেয়া হয়েছে প্রবেশ ফি নেয়ার পরিকল্পনা। চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের প্রধান প্রকৌশলী হাসান বিন শামস বললেন, আমরা তো দেখভাল করতে পারি না, ওরা সৈকতের দেখভাল করবে। তাই দেয়া হচ্ছে ইজারা।

তারপরও উন্মুক্ত সমুদ্র সৈকত ইজারার সিদ্ধান্তে ক্ষুব্ধ সাধারণ মানুষও। এর ফলে দোকানপাট রেস্টুরেন্টসহ শত শত স্থাপনা নির্মাণ তথা বহুমুখী বাণিজ্য হলে এবং সৈকতের সৌন্দর্য নষ্ট হবে বলছেন তারা।

পতেঙ্গা সৈকতের টানেল প্রান্ত থেকে রাশমনি ঘাট পর্যন্ত ৭ কিলোমিটার অংশকে দুটি জোনে ভাগ করে ২৫ বছরের জন্য ইজারা দেয়ার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে, যা বাস্তবায়ন হবে ২০২৪ সালে।

/এডব্লিউ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply