তালেবান শাসনের ১ বছর, কেমন আছেন আফগানরা?

|

আফগানিস্তানে ১ বছর পূর্ণ হলো তালেবান শাসনের। ক্ষমতায় বসে আন্তর্জাতিক সমর্থন পেতে তারা নানাবিধ সংস্কারের ঘোষণা দিয়েছিল। কিন্তু প্রতিশ্রুতি কতোটা পূরণ করতে পেরেছে কট্টরপন্থী দলটি,তা নিয়ে রয়ে গেছে সংশয়। সাধারণ আফগান নাগরিকরা বলছেন, প্রতিনিয়ত বিধিনিষেধের চাপ বাড়ছে তাদের ওপর। আর বিশ্লেষকদের অভিমত, তালেবান শাসিত সরকারের সাথে জনতার দূরত্বের কারণে খাদ্যাভাব, দারিদ্র্য, অর্থনৈতিক সংকট ও বেকারত্বের মতো সমস্যাগুলো বাড়ছে।

এক বছর ধরে বই খাতা নিয়ে স্কুলে যাওয়া হয় না ১৬ বছর বয়সী আফগান কিশোরী কেরিশমা রাশেদির। তালেবান ক্ষমতা দখলের পর তার মতো হাজার হাজার হাইস্কুল পড়ুয়া আফগান মেয়ের লেখাপড়া বন্ধ হয়ে গেছে। নানা সময় তালেবান আশার কথা শোনালেও অন্ধকারে দেশটির নারী শিক্ষা।

নতুন করে ক্ষমতা দখলের পরপরই নানা সংস্কারের ঘোষণা দিয়েছিল তালেবান। অতীত থেকে শিক্ষা নিয়ে, কঠোর নীতির পরিবর্তে ‘মডারেট পলিসি’ বা মধ্যপন্থার নীতি অবলম্বনের কথাও জানিয়েছিল তারা। তবে আফগানিস্তানের পরিস্থিতি বলছে ভিন্ন কথা। সাধারণ মানুষের ওপর আরোপ করা হয়েছে নিত্যনতুন বিধিনিষেধ। রয়েছে ভিন্নমতাবলম্বীদের নির্যাতন, নির্বিচারে গ্রেফতার আর বিচারবহির্ভূত হত্যার অভিযোগও।

নারী অধিকারকর্মী আজিতা নাজান্দ বলছেন, অতীতেও আফগান নারীদের জন্য নানা বিধিনিষেধ ছিল। নারীরা সহিংসতার শিকার হতো। কিন্তু তারপরও তাদের মাঝে আশা ছিল, কারণ সেসময় তারা স্কুলে যাওয়ার সুযোগ পেতো। শিক্ষিত হয়ে দেশের সেবা করার সুযোগ ছিল তাদের। কিন্তু এখন সে সুযোগটুকুও নেই।

তালেবান সরকারের বিরুদ্ধে বড় অভিযোগ সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ। অর্ধেকের বেশি কমেছে দেশটির সংবাদকর্মীর সংখ্যা। বন্ধ হয়েছে দুইশর বেশি গণমাধ্যম। তবে সাধারণ আফগানদের জন্য বড় দুর্ভোগ অর্থনৈতিক সংকট। খেয়ে না খেয়ে দিন কাটাচ্ছে দেশটির সাধারণ মানুষ। পুষ্টিহীনতায় ভুগছে শিশুরা। আন্তর্জাতিক সহায়তার অভাব আর যুক্তরাষ্ট্র বিপুল অর্থ জব্দ করায় বিপাকে তালেবান সরকার।

এনআরসির কান্ট্রি ডিরেক্টর নেইল টার্নার তালেবান শাসনের একবছরে দারিদ্র্যসীমার চূড়ায় পৌঁছেছে আফগানিস্তান। সাধারণ মানুষের বেতন-ভাতা কাটছাট করা হয়েছে। ঋণের ভার কমাতে আর খাবার জোটাতে বিকল্প সব পন্থা অবলম্বন করছেন আফগানরা। কিশোরী মেয়েদের বিয়ে আর শিশুশ্রম তার অন্যতম।

হামলা-প্রাণহানি কমলেও জঙ্গিগোষ্ঠী আইএসের তৎপরতা নিয়ে উদ্বিগ্ন তালেবান। সব ধরনের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সহযোগিতা পেতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে কাবুলের নতুন প্রশাসন।

/এডব্লিউ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply