শোক দিবস নয়, নিষিদ্ধ ছাত্র রাজনীতির বিরুদ্ধে ছিল প্রতিবাদ: বুয়েটের সাধারণ শিক্ষার্থী

|

সংবাদ সম্মেলনে বুয়েটের শিক্ষার্থীবৃন্দ।

শোক দিবসের অনুষ্ঠান নয়, আমাদের প্রতিবাদ বুয়েটে নিষিদ্ধ রাজনৈতিক দলের অনুষ্ঠান আয়োজনের বিরুদ্ধে। এমনটাই জানিয়েছেন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) সাধারণ শিক্ষার্থীবৃন্দ। সেই সাথে, ১৫ আগষ্ট বুয়েট ক্যাম্পাসে শোক দিবসের আলোচনা সভা ডেকেছে শিক্ষার্থীরা।

রোববার (১৪ আগস্ট) দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব ঘোষণা দেন শিক্ষার্থীরা। তারা বলেন, বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যার পরে ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধ করা হয়েছিল। তাই রাজনৈতিক দলের ছাত্র সংগঠনের ব্যানারে অনুষ্ঠান বা কোনো সভা করা বুয়েটে অবৈধ। সেটার প্রতিবাদ জানানো হয়েছে শনিবার রাতে। বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল সিদ্ধান্ত কার্যকর করতে আগামী মঙ্গলবার উপাচার্যসহ অন্যান্য প্রতিনিধিদের সাথে শিক্ষার্থীরা বৈঠক করবে বলেও জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে বুয়েটের শিক্ষার্থীরা বলে, সেমিনার কক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠান যথা নিয়মেই শেষ হয়। সাধারণ শিক্ষার্থীরা সেখানে কোনো ধরনের বাধা প্রদান করেনি। আমাদের বিক্ষোভের মূল উদ্দেশ্য ছিল, ক্যাম্পাসে রাজনৈতিক ছাত্র সংগঠনের ব্যানার ব্যবহার করে অনুষ্ঠান আয়োজনের অনুমতি প্রদান করায় কর্তৃপক্ষের জবাবদিহিতা আদায় করা।

সংবাদ সম্মেলনে বুয়েটের শিক্ষার্থী বলেন, আমরা অবাক হয়ে লক্ষ্য করছি, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমসহ বিভিন্ন প্ল্যাটফর্মে আমাদের কর্মসূচি ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার জোর অপচেষ্টা চালানো হচ্ছে। উক্ত অপপ্রচার আমাদের ভীত-সন্ত্রস্ত ও ব্যথিত করেছে। আমরা স্পষ্ট করে জানাতে চাই, আমাদের গতকালের কর্মসূচি কোনোভাবেই ক্যাম্পাসে আয়োজিত শোক দিবসের অনুষ্ঠানসমূহের বিরোধী ছিল না। ধর্ম-বর্ণ ও রাজনৈতিক পরিচয় নির্বিশেষে বুয়েটের সাধারণ শিক্ষার্থীবৃন্দ বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ধারণ করে। আমরা বিশ্বাস করি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সার্বজনীন। তার আদর্শ ধারণের জন্য কোনো রাজনৈতিক পরিচয় ধারণের প্রয়োজন পড়ে না। বুয়েট ক্যাম্পাসে সকল রাজনৈতিক দলের কার্যক্রম নিষিদ্ধ হওয়ার পর থেকে সাধারণ শিক্ষার্থীদের আয়োজনে বিভিন্ন জাতীয় দিবসে অনুষ্ঠান হয়ে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় আগামী সোমবার, ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে বিকেল ৫টায় বুয়েটের সাধারণ শিক্ষার্থীদের আয়োজনে বুয়েট ক্যাফেটেরিয়ায় একটি স্মরণসভার আয়োজন করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে বুয়েটের শিক্ষার্থীরা আরও বলেন, নৈতিকতার সাথে অসামঞ্জস্যপূর্ণ সব ধরনের অপসংস্কৃতি এবং ক্ষমতার অপব্যবহারকে রুখে দিয়ে আমরা বুয়েটের সাধারণ শিক্ষার্থীবৃন্দ ক্যাম্পাসের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সদা প্রস্তুত।

আরও পড়ুন: শোকসভার বিরোধিতাকারী শিক্ষার্থীদের রাষ্ট্রীয় অর্থে পাঠদান উচিত কিনা, প্রশ্ন তুললেন নওফেল

/এম ই





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply