সন্তানকে বাজারে বিক্রির খবরে খাগড়াছড়িতে চাঞ্চল্য; অভাবের তাড়নায় দত্তক দেয়ার কথা বললেন মা

|

অভাবের তাড়নায় ৬ বছরের সন্তানকে বাজারে নিয়ে বিক্রির চেষ্টা করেছেন মা। এমন খবরে খাগড়াছড়িতে চাঞ্চল্য তৈরি হয়েছে। তবে মা সোনালির দাবি, বিক্রি নয়, কাউকে দত্তক দিতে ছেলেকে নিয়ে বাজারে গিয়েছিলেন তিনি।

খাগড়াছড়ি থেকে ১৯ কিলোমিটার পায়ে হাঁটা পথ, ভাইবোনছড়া ইউনিয়েনর পাকোজ্জ্যাছড়ি গ্রাম। চার মাস আগে স্বামীর সাথে বিচ্ছেদের পর থেকে ৬ বছর বয়সী সন্তান রামকৃষ্ণ চাকমাকে নিয়ে বাপের বাড়ির ছোট্ট একটা ঘরে থাকেন সোনালি চাকমা।

অভাবের সংসার, একবেলা খাবার জুটে তো, আরেক বেলা কাটে না খেয়ে। সংসারের এই অবস্থায় বৃহস্পতিবার (১১ আগস্ট) একমাত্র সন্তান রামকৃষ্ণ চাকমাকে মাত্র ১২ টাকায় বিক্রির জন্য বাজারে নিয়ে যান মা সোনালী চাকমা। স্বজনদের দাবি অভাবের কারণে মানসিক ভারসাম্যহীন হয়ে পড়েছেন সোনালি।

নিজের সন্তানকে বিক্রি করতে নিয়ে যাওয়ার খবর শুনে এলাকায় ছুটে যান স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান সুজন চাকমা। সহায়তার আশ্বাস দেন এই জনপ্রতিনিধি। তিনি বলেন, আমি তাদের মা ছেলের জন্য বাজার করেছি। আগামী জানুয়ারি থেকে উনাদের জন্য ভিজিডি কার্ড করে দেবো।

সন্তান বিক্রির খবরে আশেপাশের লোকজন অনেকটা বিস্মিত। তবে সোনালির দাবি, বিক্রি নয়, কাউকে দত্তক দেয়ার জন্য ছেলেকে নিয়ে খাগড়াছড়ি বাজারে গিয়েছিলেন তিনি।

সোনালী চাকমা বলেন, আমার কিছু নাই। এজন্য আমি ছেলেকে বাজারে নিয়ে গিয়েছিলাম কাউকে দত্তক দেয়ার জন্য।

শারিরীক অবস্থাও ভালো নয় ৪৫ বছর বয়সের সোনালি চাকমার। সহায়তার পাশাপাশি তার মানসিক চিকিৎসার প্রয়োজন বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

/এনএএস





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply