বলিউডে বয়কট বিতর্ক

|

ইন্টারনেট থেকে নেয়া ছবি।

বলিউডে একের পর এক সিনেমা বয়কটের ডাক। লাল সিং চাড্ডা, ডার্লিংস এরপর বয়কট ট্রেন্ডিং-এ অক্ষয়ের ‘রক্ষা বন্ধন’ও। বলিউড সিনেমা মুক্তি পাওয়া মানেই যেনো এখন বয়কটের ডাক বাধ্যতামূলক। সোশ্যাল মিডিয়ায় বলিউড তারকাদের রীতিমতো তুলোধুনো করছেন নেটিজেনদের একাংশ। হঠাৎ কেনো এ পরিস্থিতি? ভারতের সিনে ইন্ডাস্ট্রিতে কি তবে বলিউডের একক রাজত্ব শেষ হতে চলেছে? সম্প্রতি এ নিয়ে কথা বললেন বলিউড বিশ্লেষক প্রীতি পাণ্ডে।

সম্প্রতি আমির খান এবং কারিনা কাপুরের আসন্ন সিনেমা লাল সিং চাড্ডা বয়কটের ডাক দেয়া হয়। সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রেন্ড করতে শুরু করে হ্যাশট্যাগ বয়কট লাল সিং চাড্ডা। এমন ট্রেন্ডিং দেখে ‘ভারতে যেভাবে অসহিষ্ণুতা বাড়ছে, তাতে এই দেশে থাকতে কষ্ট হচ্ছে’, বলে মন্তব্য করেন আমির। যে দেশে থাকতে ভয় হয়, সেখান কেনো নিজের সিনেমা মুক্তি করছেন! এমন প্রশ্নও তুলেছেন নেটিজেনরা।

আমিরের পাশাপাশি করিনা কাপুর খানকে নিয়েও শুরু হয় বিতর্ক। ‘আমাদের সিনেমা না দেখার হলে দেখবেন না’ বলে মন্তব্য করেন কারিনা। বিতর্কিত সেই মন্তব্য তুলে ধরে এবার তাকেও কটাক্ষ করেছেন অনেকেই। সিনে বিশ্লেষকরাও নেটিজেনদের সাথে একমত করেন এ বিষয়ে। সব মিলিয়ে উত্তাল এখন বলিউড দুনিয়া।

বলিউড বিশ্লেষক প্রীতি পাণ্ডে মনে করেন, বলিউড তারকাদের এমন দাম্ভিকতাই মূলত বলিউড পতনের কারণ। এই তারকাদের অধিকাংশই মুখে রূপার চামচ নিয়ে জন্মেছেন। তবু দর্শকরা তাদের উজাড় করে দিয়েছেন ভালোবাসা। তাই সিনেমায় গল্পের গরু গাছে উঠলেও, থিয়েটারে হুমড়ি খেয়ে পড়তেন আমজনতা। স্বজনপোষণ নিয়ে চলে আসা বিতর্কও এতদিন তাতে বিন্দুমাত্র চিড় ধরাতে পারেনি।

কিন্তু গত কয়েক বছরে সে হিসেব পাল্টে গেছে। বিশেষ করে সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যু যখন গোটা ভারতকে নাড়া দিয়েছিল, তখনই বলিউডের ‘প্রিভিলেজড ক্লাব’এর ওপর রাগ গিয়ে পড়েছিল সাধারণ মানুষের।

বলিউড বিশ্লেষক প্রীতি পাণ্ডে বলেন, ভাবখানা এমন যেনো যতোবার এদের কোনো সিনেমা ফ্লপ হয় ততবার স্বয়ং মহাদেব সুশান্ত সিং রাজপূতকে বলছেন, দেখো কীভাবে তোমার মৃত্যুর শোধ নিই।

এদিকে মহামারির পর নতুন বছরে দক্ষিণী নতুন সিনেমার দাপটে হরহামেশা নিজেদের সিনেমা মুক্তির তারিখ পেছাতে বাধ্য হয়েছে বলিউড। তবু ফ্লপ ঠেকাতে পারেনি। সাম্প্রতিক মুক্তিপ্রাপ্ত সম্রাট পৃথ্বীরাজ, শমশেরা কিংবা শাবাশ মিঠু তারই প্রমাণ।

এ প্রসঙ্গে প্রীতি পাণ্ডে বলেন, কেউ আর বলিউড তারকা দেখে সিনেমা দেখেন না। কেউ দেখেন না যে সিনেমায় তাপসী পান্নু আছে নাকি অন্য কেউ। ভারতের ক্যাপ্টেন মিতালি রাজকে নিয়ে লেখা এতো ভালো স্ক্রিপ্ট, তারপরও সিনেমা ফ্লপ। কারণ সমস্যা গল্প কিংবা মিতালিকে নিয়ে না। বলিউডের এই তথাকথিত তারকাদেরই দর্শক আর দেখতে চায় না।

পরিস্থিতি যে এতোটা খারাপ হবে, তা বোধহয় আঁচ করতে পারেনি বলিউডও।

এদিকে সোশ্যাল মিডিয়াতেও পছন্দের তারকাদের বয়কট করতে শুরু করেছেন দর্শক। গত কয়েকদিনে লাখ লাখ অনুরাগী হারিয়েছেন করণ জোহর, আলিয়া ভাট, সোনম কাপুর এবং সালমান খানের মতো তারকারা।

সব মিলিয়ে বেশ গ্যাঁড়াকলেই আছে এখন বলিউড। বিশ্লেষকেরা মনে করছেন, যদি এখনই নিজেদের ভুল শোধরানোয় মনোযোগী না হয় বলিউড, তবে অদূর ভবিষ্যতে দক্ষিণী তারকারাই দখল করে নিতে পারে মুম্বাই। কে জানে, সালমান-শাহরুখের বদলে তখন যশ-আল্লুরাই বলিউডের মূল চালিকাশক্তি হয়ে ওঠেন কি না!

/এসএইচ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply