কোনদিকে মোড় নিলো প্রেমকান্তের প্রেম কাহিনি

|

বরগুনার তরুণী ও তামিলনাড়ুর তরুণ প্রেমকান্তের প্রেমকাহিনি নিয়ে জল ঘোলা হয়েছে অনেকটা। তবুও হয়নি কোনো সমাধান। প্রেমিকার গ্রামের বাড়ি বরগুনার তালতলীতে গিয়ে দেখা মেলেনি তার। তরুণীর পরিবারের অভিযোগ, ব্লাকমেইল করছে প্রেমকান্ত, নিরাপত্তা চেয়ে থানায় সাধারণ ডায়েরিও করেছেন তারা। আর প্রেমকান্তের অভিযোগ, চয়ন নামে এক যুবক মারধর করেছেন তাকে। এ ব্যাপারে পুলিশের সাহায্যও পাননি তিনি।

বরিশাল সরকারি মহিলা কলেজের ছাত্রী প্রাপ্তি মন্ডলের সাথে সামাজিক মাধ্যমে পরিচয়ের সূত্র ধরে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে ভারতের তামিলনাড়ুর যুবক প্রেমকান্ত বলরামনের। গত ২৪ জুলাইন এরই জের ধরে বরিশালে আসেন তিনি।

পর দিন প্রাপ্তির কলেজ ক্যাম্পাসে প্রথম দেখা হয় প্রাপ্তি-প্রেমকান্তের। একই দিন নগরীর একটি রেস্টুরেন্টেও দেখা করেন তারা।

প্রেমকান্ত জানান, ২৭ জুলাই বঙ্গবন্ধু উদ্যানে প্রাপ্তির সাথে আবার দেখা হয় তার। এরপর ইজিবাইকে করে তাকে নিয়ে ঘুরতে বের হলে কাশিপুর চৌমাথা এলাকায় ইজিবাইক থামিয়ে তাকে মারধর করে চয়ন হাওলাদার নামে এক যুবক। প্রেমকান্তে দাবি, চয়ন প্রাপ্তির প্রেমিক। তার প্রাপ্তির সাথে যোগসাজশেই তাকে মারধর করেছে ওই যুবক। তবে এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন চয়ন।

মারধরের ঘটনার পর থেকেই নিজ বাড়িতে অবস্থান করছেন প্রাপ্তি। তার খোঁজে শুক্রবার তালতলিতে যান প্রেমকান্ত। এসময় তার সাথে ছিলেন স্থানীয় কয়েকজন সংবাদকর্মী।

প্রেমকান্তের দাবি, প্রেমিকার পরিবারের সাথে যোগাযোগ ছিল তার পরিবারের। তবে প্রাপ্তির মা বলছেন, এটি সত্যি নয়, কেননা ইংরেজি বা তামিল, কোনো ভাষাতেই কথা বলতে জানেন না তিনি এবং প্রাপ্তির বাবা। এমন অবস্থায় হয়রানির অভিযোগে তালতলী থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছে প্রাপ্তির পরিবার।

বিষয়টি তদন্ত করে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানিয়েছেন তালতলী থানার ওসি কাজী মো. শাখাওয়াত হোসেন।

প্রেমিকার দেখা না পেয়ে এরই মধ্যে শনিবার বরগুনা ছেড়েছেন প্রেমকান্ত।

/এডব্লিউ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply