জাপানের বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলে আছড়ে পড়লো একাধিক চীনা ক্ষেপণাস্ত্র!

|

ছবি: সংগৃহীত।

জাপানের বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলে পরপর পাঁচটি চীনা ব্যালাস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র আঘাত এনেছে বলে জানিয়েছে জাপানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। তাইওয়ান ঘিরে সামরিক মহড়া চলাকালে চীনের ছোড়া নয়টি ক্ষেপণাস্ত্রের মধ্যে পাঁচটি জাপানের সীমানায় আছড়ে পড়েছে বলে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী নোবুও কিশি। কূটনৈতিক প্রক্রিয়ায় এ নিয়ে চীনা কর্তৃপক্ষের কাছে প্রতিবাদ জানানো হয়েছে বলেও জানান নোবুও কিশি। খবর আলজাজিরার।

এনিয়ে বৃহস্পতিবার (৪ আগস্ট) জাপানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী নোবুও কিশি বলেন, চীনের ছোড়া ৯টি ব্যালাস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের মধ্যে পাঁচটি জাপানের বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলের মধ্যে পড়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। সেগুলো ওকিনাওয়ার হেটেরুমা দ্বীপের দক্ষিণ-পশ্চিমে বিস্ফোরিত হয়েছে বলে আমাদের ধারণা। তিনি বলেন, এটি একটি গুরুতর সমস্যা। এই ধরনের ঘটনা আমাদের জাতীয় নিরাপত্তা ও নাগরিক সুরক্ষার ক্ষেত্রে হুমকিস্বরূপ।

প্রসঙ্গত, বেইজিংয়ের কড়া সতর্কবার্তা সত্ত্বেও গত বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রের নিম্নকক্ষের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসির তাইওয়ান সফরকে কেন্দ্র করে তাইওয়ানের চারপাশে সর্বকালের বড় সামরিক মহড়া শুরু করেছে চীন। এই মহড়ার অংশ হিসেবেই ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়া হয়, যার মধ্যে ৫টি ক্ষেপণাস্ত্র কোনো কারণে জাপানে গিয়ে বিস্ফোরিত হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। তবে এ ঘটনায় কারো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

মূলত, জাপানের বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল দেশটির উপকূলরেখা থেকে ২০০ নটিক্যাল মাইল পর্যন্ত বিস্তৃত। এর আঞ্চলিক জলসীমার বাইরে এবং জাপানের দক্ষিণতম দ্বীপ অঞ্চল ওকিনাওয়ার কিছু অংশ তাইওয়ানের কাছাকাছি হওয়ায় এ ঘটনা ঘটেছে বলে ধারণা সংশ্লিষ্টদের। তাই তাইওয়ানের আশেপাশে বেইজিংয়ের সামরিক মহড়াকে অবিলম্বে বন্ধ করার আহ্বান জানিয়েছেন জাপানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইয়োশিমাসা হায়াশিও। তিনি বলেন, চীনের গত কয়েক দিনের পদক্ষেপগুলো এই অঞ্চল এবং আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের শান্তি ও স্থিতিশীলতার ওপর গুরুতর প্রভাব ফেলছে।

এসজেড/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply