চাকরিপ্রার্থীদের আটকে রাখা হতো রহস্যময় বাড়িটির টর্চার সেলে

|

ময়মনসিংহে ব্রহ্মপুত্রের চর এলাকায় সন্ধান মিলেছে এক রহস্যময় বাড়ির। বাড়িটির ভেতরে রয়েছে জানালাবিহীন টর্চার সেল, লুকানোর জন্য রয়েছে কনক্রিটের চেম্বার। পত্রিকায় লোভনীয় বিজ্ঞাপন দেয়ার পর ইন্টারভিউয়ের কথা বলে ডেকে নিয়ে আটকে রাখা হতো টর্চার সেলে। এরপর মুক্তিপণের জন্য করা হতো নির্যাতন। এরই মধ্যে পুলিশ বাড়িটির সন্ধান পেয়েছে, অভিযান চালিয়ে গ্রেফতারও করেছে চার জনকে। এমন পরিকল্পিত টর্চার সেল তৈরি করায় হতবাক এলাকাবাসী। বাড়িটি দেখতে ভিড় করছেন আশপাশের গ্রামের মানুষ।

গাছপালার ছায়াঘেরা মনোরম বাড়িটির অবস্থান ময়মনসিংহের গৌরিপুরের ব্রহ্মপুত্র নদের চর এলাকা ভাংনামারী ইউনিয়নে। বাড়ির ভেতরে টর্চার সেল হিসেবে ব্যবহৃত তিনটি রুমের সাথে রয়েছে কনক্রিটের একটি চেম্বারের সংযোগ।

পত্রিকায় চাকরির বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়। এরপর আগ্রহী প্রার্থীদের ইনটারভিউ নেয়ার কথা বলে ডেকে নেয়া ব্রহ্মপুত্রের এই চরে। এরপর মুক্তিপণ চেয়ে চলে নির্যাতন।

ভুক্তভোগীর দেয়া তথ্যে শুক্রবার অভিযান চালায় পুলিশ। উদ্ধার হয় অসংখ্য চাকরির আবেদন ও জীবন বৃত্তান্ত। গ্রেফতার হয় চার ভাই। স্থানীয় শফিক মাস্টার নামের ব্যক্তি তার ভাইদের নিয়ে তৈরি করে এই বাড়ি, যেখানে প্রায়ই বসতো নেশার আসর।

ময়মনসিংহের কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাহ কামাল আকন্দ বলছেন, অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে, ঘটনার তদন্ত শুরু করেছেন তারা।

এলাকাবাসী বলছে, রহস্যজনক এই বাড়ি তৈরি ও গ্রেফতার চার ভাইয়ের পেছনে ক্ষমতাধর কোনো ব্যক্তি বা গোষ্ঠির মদত থাকতে পারে।

/এডব্লিউ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply