ইমো’তে নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্ন-উত্তর, শিক্ষকসহ ৬ জন গ্রেফতার

|

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি
প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ইমো’তে প্রশ্ন ও উত্তর আদান প্রদানসহ পরীক্ষা কেন্দ্রে নানা জালিয়াতির অভিযোগে ২ পরীক্ষার্থী ও ১ শিক্ষকসহ ৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তারা ইলেকট্রনিকস ডিভাইস প্রশ্ন ফাঁসের নানা উপকরণ কেন্দ্রে সরবরাহ করেছিল।
আজ সকালে পরীক্ষা চলাকালীন সময় শহরের পিটিআই ও দিশারী প্রিক্যাডেট স্কুল ও কলেজ কেন্দ্র থেকে তাদের আটক করে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়।

সংশ্লিষ্টরা জানায়, প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় ঝিনাইদহের দিশারী কেন্দ্রে সুরাইয়া খাতুন নামের এক পরীক্ষার্থী ইমো ব্যবহার করে প্রশ্ন-উত্তর আদান প্রদান করে। অপরদিকে পিটিআই কেন্দ্রে পরীক্ষা শুরুর ২৬ মিনিটের সময় পিকুল নামের এক পরীক্ষার্থীর মোবাইলে সকল প্রশ্নের উত্তর চলে আসে। চাঞ্চল্যকর এমন ঘটনায় জেলা প্রশাসক সরোজ কুমার নাথ, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সোহেল জুলকার নায়ন কবির সহ নিয়োগ পরীক্ষার শিক্ষক-কর্মকর্তারা প্রশ্ন-উত্তর ফাঁসকারীদের যাবতীয় তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করে।

এসব ঘটনায় সুরাইয়া আক্তার, পিকুল বিশ্বাস সহ দিশারী প্রিক্যাডেট স্কুল ও কলেজের রেজিস্ট্রার ফারুক হুসাইন, রফিক আহমেদ জনি, শাহীন আলম ও আলী রেজা নামের ৬ জন কে আটক করা হয়। রেজিস্ট্রার ফারুক হোসেন জালিয়াতি করে রফিক আহমেদ জনি, শাহিন আলম এবং আলী রেজা কে পরীক্ষা কেন্দ্রে প্রবেশের ভুয়া কক্ষ পরিদর্শক কার্ড প্রদান করেছিল।

এসব ঘটনায় ঝিনাইদহ জেলা শিক্ষা অফিসার বাদি হয়ে সদর থানায় তাদের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেছেন। এ মামলায় অজ্ঞাত আরও কয়েকজনকে আসামী করা হয়েছে।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply