রাজস্ব আদায়ে কঠোর হচ্ছে এনবিআর, কর্মকর্তাদের দেয়া হচ্ছে বিচারিক ক্ষমতা

|

রাজস্ব আদায়ে কঠোর হচ্ছে এনবিআর। এজন্য কর কর্মকর্তাদের দেয়া হচ্ছে অবাধ ক্ষমতা। বাজেটে রাজস্ব আদায়ের ক্ষেত্রে জরিমানা করা ছাড়াও সেবা সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার মতো ক্ষমতাও পাচ্ছেন একেকজন কর্মকর্তা। ব্যবসায়ীরা বলছেন, কর কর্মকর্তাদের বিচারিক ক্ষমতা দেয়া হলে আতঙ্ক বাড়বে। আর বিশ্লেষকরা মনে করেন, ভয় দেখিয়ে রাজস্ব আদায় বৃদ্ধি সম্ভব হবে না।

দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে কর জিডিপির অনুপাতে তলানিতে অবস্থান করছে বাংলাদেশ। নানামুখী উদ্যোগ নেয়া হলেও আদায় করা যাচ্ছে না কাঙ্ক্ষিত রাজস্ব। এমন অবস্থায় কর কর্মকর্তাদের অবাধ ক্ষমতা দিচ্ছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড, এনবিআর। বাজেটে ক্ষমতার বিষয়টি স্পষ্ট করেছেন অর্থমন্ত্রী। অর্থবিলে বলা হয়েছে, উৎসে কর আদায় কম হলে যে পরিমাণ কম হবে তার সঙ্গে মোট অর্থের ওপর ২ ভাগ জরিমানা গুনতে হবে। আর যদি অর্থ পরিশোধে ব্যর্থ হয়, তবে কর কর্মকর্তারা জরিমানা করতে পারবেন ১০ লাখ টাকা পর্যন্ত।

কর কর্মকর্তারা প্রতিষ্ঠানের নথিপত্র কম্পিউটার দেখতে পারবেন। অসহযোগিতা করা হলে সর্বোচ্চ জরিমানা করা যাবে ৫০ লাখ টাকা পর্যন্ত। অবিতর্কিত রাজস্ব দাবি পরিশোধ না করলে ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের গ্যাস, বিদ্যুৎ, পানিসহ অন্যান্য সেবা সংযোগ বিচ্ছিন্নও করতে পারবেন কর কর্মকর্তা।

উৎসে কর কাটার জন্য ১৬টি কর্তৃপক্ষ আছে, নতুন বাজেটে সরকারি-বেসরকারি খাতের আরও চারটি খাত যোগ করেছে এনবিআর। তবে কর্মকর্তাদের মতে, ভয়ভীতি দেখিয়ে রাজস্ব আদায় করার কৌশল সঠিক নয়। এক্ষেত্রে করজাল বিস্তার করা দরকার।

/এডব্লিউ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply