যুক্তরাষ্ট্রে লরিতে অভিবাসীদের মৃত্যুর জন্য দায়ী দারিদ্র্য আর হতাশা: মেক্সিকো 

|

ছবি: সংগৃহীত

যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসে লরিতে অভিবাসীদের মৃত্যুর জন্য দায়ী দারিদ্র্য আর হতাশা। গতকাল মঙ্গলবার মেক্সিকোর প্রেসিডেন্ট আন্দ্রেস ম্যানুয়েল লোপেজ ওব্রাদর এ কথা জানিয়েছেন। খবর বিবিসির।

খবরে বলা হয়, মেক্সিকোর প্রেসিডেন্ট অভিবাসী লোকজনের মৃত্যুর জন্য সীমান্তে পাচার ও যথাযথ নিয়ন্ত্রণের অভাবকে দায়ী করেছেন। যুক্তরাষ্ট্রে পাচারের কারণে অভিবাসী মৃত্যুর সবচেয়ে খারাপ ঘটনা এটি।

বিবিসি জানায়, নিহতদের মধ্যে প্রায় দুই ডজন মেক্সিকান, সাতজন গুয়াতেমালান এবং দু’জন হন্ডুরান নাগরিক। চার শিশুসহ যাদের জীবিত পাওয়া গেছে তাদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। বেঁচে থাকা ব্যক্তিরা অত্যধিক গরমে কাহিল। তারা হিট স্ট্রোক এবং তাপ ক্লান্তিতে ভুগছেন।

মেক্সিকান কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, অন্তত দুই মেক্সিকান নাগরিককে হাসপাতালে ডিহাইড্রেশনের জন্য চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। কনস্যুলার কর্মকর্তারা তাদের পরিচয় নিশ্চিত করতে কাজ করছেন। নিহতদের জাতীয়তা নিশ্চিত করতে কর্তৃপক্ষ কাজ করছে।

উল্লেখ্য, সান অ্যান্টোনিও শহরের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে রেললাইনের পাশে লরিটির সন্ধান মেলে। ওই লরি থেকে কমপক্ষে ৫১ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র-মেক্সিকো সীমান্ত থেকে ২৫০ কিলোমিটার দূরে শহরটি অবস্থিত। শহরটিতে এখন গ্রীষ্মকাল চলছে। স্থানীয় সময় গতকাল সোমবার তাপমাত্রা ৪৯ দশমিক ৪ ডিগ্রিতে গিয়ে ঠেকে।

ইউএইচ/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply