শান্তিনিকেতনে ‘বাংলাদেশ ভবন’ উদ্বোধন

|

পশ্চিমবঙ্গের শান্তিনিকেতনে উদ্বোধন করা হলো বাংলাদেশ ভবন। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যৌথভাবে বাংলাদেশের অর্থায়নে নির্মিত এ ভবনটি উদ্বোধন করেছেন। উপস্থিত ছিলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জিও।

৪ হাজার ১০০ বর্গমিটারের এ বাংলাদেশ ভবনে দুটি সেমিনার হল, লাইব্রেরি, যাদুঘর, স্টাডি সেন্টার ও ক্যাফেটিয়ারিয়া ছাড়াও রয়েছে ৪৫৩ আসন বিশিষ্ট একটি অত্যাধুনিক অডিটোরিয়াম। যাদুঘরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলাম ছাড়াও জাতীয় তিন নেতার ছবি স্থান পেয়ছে। এ ছাড়াও রয়েছে শিলাইদহে বিশ্বকবির ব্যবহৃত নৌকার একটি রেপ্লিকা। বাংলাদেশ ভবনের লাইব্রেরিতে এখনও পর্যন্ত সাড়ে তিন হাজার বই রাখা হয়েছে। তবে লাইব্রেরিতে আরও ১০ হাজার বই রাখার প্রক্রিয়া চলছে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশের সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়।

এরআগে শান্তিনিকেতনে বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তনে যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। একই মঞ্চে ছিলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। আচার্যের ভাষণে নরেন্দ্র মোদি বলেন, আলাদা ভূখণ্ড হলেও বাংলাদেশ এবং ভারতের সংস্কৃতি ও কৃষ্টি অভিন্ন। যা দুই দেশের মানুষের সম্পর্ককে নিবিড় করেছে। সমাবর্তন অনুষ্ঠানে অংশ নেয়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানান নরেন্দ্র মোদি।

প্রধানমন্ত্রীর সফরকে কেন্দ্র করে উৎসাহ উদ্দীপনা বিরাজ করছে বিশ্বভারতীর বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের মধ্যে। শনিবার আসানসোলে কাজী নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তনেও যোগ দেবেন শেখ হাসিনা। সেখানে সম্মানসূচক ডিলিট উপাধি গ্রহণ করবেন প্রধানমন্ত্রী। দুদিনের সফর শেষে কাল সন্ধ্যায় দেশে ফিরবেন তিনি।









Leave a reply