স্কুলে ফোন আনায় ১০ শিক্ষার্থীকে স্টোর রুমে আটকে রাখার অভিযোগ প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে

|

Exif_JPEG_420

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি:

ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর পৌর শহরের এন.কে.আর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. শাহিনুর রহমানের বিরুদ্ধে এসএসসি পরিক্ষার্থীসহ মোট ১০ শিক্ষার্থীকে বিদ্যালয়ের স্টোর রুমে আটকে রাখার অভিযোগ উঠেছে। প্রধান শিক্ষকের দাবি, ক্লাসে মোবাইল ফোন নিয়ে আসায় শাস্তিমূলক ব্যবস্থাগ্রহণ করা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত সোমবার (২৭ জুন) পৌর শহরের নওদাগা কাশিপুর-রাঙ্গিয়ারপোতা (এন.কে.আর) বিদ্যালয়ের কিছু শিক্ষার্থী মোবাইল ফোন নিয়ে শ্রেণিকক্ষে আসে। এ সময় প্রধান শিক্ষকসহ অন্যান্য শিক্ষকরা শিক্ষার্থীদের মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেয়। সেই সাথে মৌখিকভাবে তাদেরকে বিদ্যালয়ে আসতে নিষেধ করা হয়। এমনকি স্কুলে আসলে পুলিশে দেয়া হবে বলেও হুমকি দেওয়া হয়।

এর পরদিন মঙ্গলবার (২৮ জুন) ওই শিক্ষার্থীরা পুনরায় স্কুলে আসলে, তাদেরকে প্রথমে বাইরে রোদের মধ্যে দাঁড় করিয়ে রাখা হয়। পরবর্তীতে বিদ্যালয়ের সভাপতি জাকারিয়া হোসেনের নির্দেশে প্রধান শিক্ষক শাহিনুর রহমান তাদেরকে একটি স্টোর রুমে আটকে রাখেন।

এ ব্যাপারে প্রধান শিক্ষক শাহিনুর রহমান বলেন, শিক্ষার্থীদেরকে স্কুলে মোবাইল ফোন নিয়ে আসতে নিষেধ করা হয়েছে। এরপরও তারা মোবাইল নিয়ে ক্লাসে আসে। পরে শাস্তিমূলক তাদের মোবাইলফোন ছিনিয়ে নেয়া হয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে কিছু শিক্ষার্থী দুই শিক্ষকের মোটরসাইকেলের ছিট কেটে গাড়ির প্লাগের তার কেটে দেয়। এমনকি ওয়াটার রুমের বেসিন উল্টে রেখে দেয় তারা। মঙ্গলবার সেই শিক্ষার্থীরা স্কুলে আসলে তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকা হয়।

এদিকে, ওই শিক্ষার্থীদের দাবি, কারা এ কাজ করেছে তা জানা নেই তাদের। এ ঘটনায় বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীসহ এলাকাবাসী ও অভিভাবকদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

এ ব্যাপারে কোটচাঁদপুর মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মো. রতন মিয়া বলেন, শিক্ষার্থীদের স্কুলে মোবাইলফোন নিয়ে আসা নিষেধ। তবে তাদেরকে আটকে রাখা ঠিক হয়নি। ঘটনাটি আমি জানি না! খোঁজ নিয়ে দেখছি।

এসজেড/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply