হৃদরোগের ঝুঁকি কমাতে কাজের ফাঁকে যেসব খাবার খেতে পারেন

|

ছবি: সংগৃহীত

জীবনযাত্রা সম্পর্কে সচেতন না হলে একটা বয়সের পর থাবা বসাতে পারে হৃদরোগ। বিশেষ করে উচ্চ রক্তচাপ, কোলেস্টেরল, ডায়াবেটিস থাকলে এই বিষয়ে আরও সতর্ক হওয়া জরুরি। কিন্তু অস্বাস্থ্যকর জীবনযাপন, সময়ের অভাবে অনিয়মিত খাওয়াদাওয়া, অত্যধিক ব্যস্ততা ও মানসিক চাপ কিন্তু হৃদরোগের কারণ হতে পারে।

এছাড়াও প্রক্রিয়াজাত খাবার, ভাজাপোড়া, বাইরের তেল-মশলাদার খাবার বেশি খাওয়ার অভ্যাস হৃদরোগ ডেকে আনতে পারে। হার্টের স্বাস্থ্য উন্নত করতে চাইলে প্রতিদিন খাদ্যতালিকায় রাখতে পারেন বাদাম। স্বাস্থ্যকর ফ্যাট, খনিজ, অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট সমৃদ্ধ বাদাম হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি কমায়।

হৃদরোগ বিশেষজ্ঞদের মতে, নিয়মিত যারা বাদাম খান তাদের হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা কম থাকে। কিন্তু এত খাবার থাকতে হৃদযন্ত্র বাদাম খাওয়ার ওপর জোর দিচ্ছেন কেন চিকিৎসকরা? জেনে নেয়া যাক কয়েকটি কারণ-

১) বাদামে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে আনস্যাচুরেটেড ফ্যাট। যা খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে সাহায্য করে। একইসঙ্গে হৃদরোগের ঝুঁকিও হ্রাস পায় অনেকাংশে।

২) ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড সমৃদ্ধ বাদাম হৃদযন্ত্র এবং রক্তনালীর জন্য ভালো। রক্তে থাকা ‘ট্রাইগ্লিসারাইড’ নামক এক ধরনের ফ্যাট হৃৎস্পন্দনে ব্যাঘাত ঘটায়। ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড রক্ত থেকে এই ফ্যাটের মাত্রা কমায়।

৩) বাদামে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার থাকে। রক্তে লিপিড প্রোফাইলের মাত্রা বাড়াতে ফাইবার সমৃদ্ধ বাদাম বেশ কার্যকর। এছাড়া ফাইবার হৃদরোগের ঝুঁকি কমাতেও সাহায্য করে।

৪) ভিটামিন ই সমৃদ্ধ বাদাম শুধু হৃদযন্ত্র ভালো রাখতে নয়, শরীরের সার্বিক সুস্থতার ভিত্তি হিসাবেও কাজ করে।
তথ্যসূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা
ইউএইচ/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply