কুশিয়ারা অববাহিকায় অবনতি, বাকি অঞ্চলে বন্যার উন্নতি

|

অতি প্লাবিত সুনামগঞ্জে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে। পানি যত নেমে যাচ্ছে, ততই স্পষ্ট হচ্ছে বন্যার ক্ষতচিহ্ন। ভূ-ভাগ দৃশ্যমান হওয়ার পর থেকেই ক্ষয়ক্ষতি নিরূপন শুরু করেছে প্রশাসন।

সুনামগঞ্জে ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত, বেহাল সড়ক। সড়ক যোগাযোগ এখনো ব্যাহত। বাসভাসিদের সবচেয়ে বেশি কষ্ট খাবার আর বিশুদ্ধ পানি সংগ্রহে।

কোস্টগার্ডের পক্ষ থেকে বলা হয়, অন্যান্য বাহিনীর সাথে যৌথভাবে উদ্ধার কার্যক্রম ও ত্রাণ তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে। ভবিষ্যতেও যতদিন প্রয়োজন হয়, ততদিন উদ্ধার কার্যক্রম ও ত্রাণ তৎপরতা চালিয়ে যাবে কোস্টগার্ড।

অন্যদিকে, কুশিয়ারা নদীর পানি অমলশিদ পয়েন্টে এখনও বিপৎসীমার উপরে। এতে মৌলভীবাজারের হাওরাঞ্চল ও সিলেটের একাংশ প্লাবিত।

এছাড়া, রংপুর-গাইবান্ধা-লালমনিরহাটসহ তিস্তা অববাহিকার বেশিরভাগ জনপদ থেকেই নেমে গেছে বানের জল। নিজেদের আর গবাদিপশুর খাবার যোগাড় করাই এখন তাদের বড় চ্যালেঞ্জ।

মধ্যাঞ্চলেও পরিস্থিতির উন্নতি আছে। নেত্রকোনায় পানি কমতে থাকায় ঘরে ফিরছে বানভাসিরা। তবে পানি কমলেও দুর্ভোগ কমেনি। ত্রাণের জন্য অপেক্ষা বাড়ছে এসব দুর্গত এলাকার মানুষের।

/এমএন





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply