রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে ফেসবুক লাইভে প্রিয়াঙ্কা

|

রোহিঙ্গা শিশুদের সহায়তায় সবাইকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন বলিউড অভিনেত্রী ও জাতিসংঘের শিশুবিষয়ক সংস্থা ইউনিসেফের শুভেচ্ছা দূত প্রিয়াঙ্কা চোপড়া।

সকালে সাড়ে ৯টার দিকে কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে ফেসবুক লাইভে আসেন প্রিয়াঙ্কা। প্রায় ১৪ মিনিটের বক্তব্যে তিনি নানা সমস্যার কথা তুলে ধরে সহায়তান চান তিনি। বলেন, শিশুদের ধর্ম-বর্ণ-পরিচয় এগুলো বড় বিষয় না। রোহিঙ্গা শিশুদের এখন প্রয়োজন সহানুভূতি।

শিশুদের জন্য নির্ধারিত ক্যাম্প থেকে প্রিয়াঙ্কা বলেন, ক্যাম্পে বৃষ্টি হলে শৌচাগার থেকে পানি উপচে পড়ে এবং পানি দূষিত হয়ে যায়। এর ফলে নানা রোগজীবাণু ছড়িয়ে পড়ে।

শিশুদের দুর্দশার কথা জানিয়ে প্রিয়াঙ্কা চোপড়া ইউনিসেফের একটি শিশু শিক্ষালয়ে শিশুদের সাথে কথা বলেন তিনি। এসময় তিনি শিশুদের বাংলায় জিজ্ঞেস করেন, কেমন আছো। এছাড়া শিশুরা কি একেছিলো তা দেখেন। তাদের প্রশংসা করেন।
এসময় তিনি বলেন, শিশুরা দিনে ২ ঘণ্টার জন্য এই শিক্ষালয়ে আসে। তারপর সারাদিন এই ক্যাম্পে ঘুরে বেড়ায়। তারা জানে না কখন খাবে, তারা জানে কোথায় কি পাবে। আর এটাই তাদের জীবন। শিশুদের জন্য আলাদা ক্যাম্পের প্রয়োজন। বিশ্ববাসী সেই সহযোগিতা করতে পারে।

ক্যাম্পের অভিজ্ঞতা জানাতে গিয়ে প্রিয়াঙ্কা জানান, এখান আবহাওয়া খুবই গরম। পরিষ্কার পানি নেই, পরিষ্কার পানির সাথে টয়লেটের লাইন কাছাকাছি হওয়ায় রোগ জীবানু ছড়িয়ে পড়ছে। থাকার মতো বেশি জায়গা নেই। সবাই খুব কাছাকাছি থাকেন। ঘরে কোন জানালা নেই, বাশ আর প্লাস্টিক দিয়ে এসব ঘর বানানো হয়।

এসময় প্রিয়াঙ্কা জানান, ঘরগুলো খুব নড়বড়ে, ঘুর্ণিঝড় আসলে ভেঙে পড়বে, এছাড়া পাহাড়ের পাদদেশে ক্যাম্প হওয়ার কারণে যেকোন সময়ে মাটিধস হতে পারে। তাই সবার সহযোগিতা দরকার।

২১ মে কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে যান প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। এরপর থেকে তিনি সেখানেই অবস্থান করছেন।









Leave a reply