অর্থকষ্ট সইতে না পেরে থানায় সুইসাইড নোট মেইল করে ব্রহ্মপুরে প্রেমিক যুগলের আত্মহত্যা

|

ছবি: সংগৃহীত

‘আমাদের সময় শেষ। আমরা চাই না, আমাদের মৃত্যু নিয়ে কোনো আলোচনা হোক।’ এই সুইসাইড নোট লিখে থানায় মেইল করে ভারতের ব্রহ্মপুরের এক প্রেমিক যুগল। মেইল পেয়ে লোকেশন ট্র্যাক করে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে দুজনের নিথর দেহ দেখতে পায়।

ভারতীয় গণমাধ্যম হিন্দুস্থান টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের ধারণা, কোনো ওষুধ খেয়ে আত্মহত্যা করেছেন যুগল। ঘর থেকে উদ্ধার হয়েছে একটি সুইসাইড নোট। তাতে লেখা, ‘আমাদের বডি যেন বন্ধুদের দিয়ে দেয়া হয়।’

বুধবার (২২ জুন) বাঁশদ্রোণীর ব্রহ্মপুরের ভাড়ার ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার হয় মেডিকেল রিপ্রেজেন্টিটিভ ঋষিকেশ পাল ও তার লিভ ইন পার্টনার রিয়া সরকারের দেহ। ঘরের দরজা ভেঙে ভিতরে ঢুকে পুলিশ দেখে, এসি চলছে। বিছানায় পড়ে আছে চাদরে ঢাকা ২টি নিথর দেহ।

যুগলের বন্ধুরা জানিয়েছে, ঋষিকেশ আরামবাগের বাসিন্দা। আগে ভবানী ভবনে চাকরি করতেন কিনি। কোনো কারণে চাকরিটি চলে যায়। এরপর মেডিকেল রিপ্রেজিন্টিটিভের পেশায় যুক্ত হন তিনি। ঋষিকেশ ব্লাড ক্যান্সারে আক্রান্ত ছিলেন। চিকিৎসা করাতে অনেক ধার দেনা হয়ে গিয়েছিল ঋষিকেশের। যার জেরে হতাশায় ভুগছিলেন তিনি।

পুলিশ জানিয়েছে, বুধবার তারা একটি ইমেইল পান। তাতে লেখা আর্থিক অনটনের জন্য আমরা আত্মঘাতী হতে বাধ্য হচ্ছি। ইমেইলে জানানো হয়েছে, যুগলের একটি ওষুধের ব্যবসা ছিল। কিন্তু টাকার অভাবে সেটি বন্ধ হয়ে গিয়েছে।

/এনএএস





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply