আজ আওয়ামী লীগের ৭৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী

|

ছবি: সংগৃহীত

দেশের সর্ববৃহৎ রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগের ৭৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ ২৩ জুন। ১৯৪৯ সালের এই দিনে পুরান ঢাকার কে এস দাস লেনের রোজ গার্ডেনে প্রতিষ্ঠা হয় এ দলটি। দীর্ঘদিনের পথচলায় দলটির বয়স এখন ৭৩।

এখনও গণমানুষের দল হিসেবে প্রথম নাম বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ। এটিই দলটির সব থেকে বড় প্রাপ্তি। মুক্তিযুদ্ধের নেতৃত্ব দানের পাশাপাশি অর্থনৈতিক এবং অবকাঠামোগত উন্নতি সব ক্ষেত্রেই রাজনৈতিক দল হিসেবে অপ্রতিদ্বন্দ্বী বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ। তবে দীর্ঘ এই পথচলায় দলটি তার মূল শক্তি তৃণমূল কর্মীদের থেকে সরে গেছে অনেকটাই। ব্যবসায়ী এবং আমলাদের প্রতি নির্ভরতা দলটির জন্য ভবিষ্যতে বড়ো ক্ষতির কারণ বলে মনে করেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকেরা।

স্বাধীনতার স্বপ্ন থেকে মুক্তি অর্জন। গণমানুষের অধিকার থেকে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার; সব ক্ষেত্রে এক নাম আওয়ামী লীগ। মুক্তিযুদ্ধের মহানায়ককে সপরিবারে হত্যার পর সাময়িক হোঁচট খেলেও নিজ লক্ষ্যে বলীয়ান দলটি।

নানা ঘাত প্রতিঘাতের পর দলটির দায়িত্বে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা। ভঙ্গুর দলটিকে শক্তিশালী করার পাশাপাশি এসেছেন ক্ষমতায়। গণতন্ত্র চর্চার পাশাপাশি শুরু হয় অর্থনৈতিক এবং অবকাঠামোগত উন্নয়ন। তবে নানা অর্জনে একক কৃতিত্ব থাকলেও টানা ক্ষমতায় থাকার কারণে ক্রমেই তৃণমূলের সাথে কেন্দ্রের দূরত্ব বাড়ছে বলে মত রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের। আমলা ও ব্যবসায়ীদের প্রতি অতিনির্ভরতার কারণেও সাংগঠনিক কাঠামো গুরুত্ব হারাচ্ছে বলেও মত তাদের।

ইতিহাসবিদ ও গবেষক অধ্যাপক মুনতাসীর মামুন বলেন, কেন অন্যে ওপর দলটি নির্ভর করছে সরকারি নীতি নির্ধারকরাই বলতে পারেন। বঙ্গ বন্ধু সে কাজটি কখনওই করেননি। সিভিল সমাজকে যদি ক্ষমতায় না আনেন তাহলে অন্যের ওপর নির্ভরতা এক সময় বিপদের কারণ হয়ে দাঁড়াবে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিকী বলেন, আমলাতান্ত্রিক যে নির্ভরতা, ব্যবসায়িক যে নির্ভরতা বা অন্যের ওপর নির্ভরতা যারা দলের সাথে সব সময় সম্পৃক্ত নন কিন্তু এখন আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকার কারণে তারা আশেপাশে চলে এসেছে, এই সকল বিষয়গুলো নিয়ে দলীয় নেতৃবৃন্দের অবশ্যই সতর্ক হতে হবে।

কেন্দ্র থেকে তৃণমূল- সব ক্ষেত্রে গণতন্ত্রের চর্চা অব্যাহত থাকলেই সাংগঠনিক অবস্থা আরও শক্তিশালী হবে। ফলাফল হিসেবে শুধু দলের কর্মীদের ওপর ভিত্তি করেই আদর্শ ও ঐতিহ্যবাহী দল হিসেবে এগিয়ে চলবে আওয়ামী লীগ, এমনই আশা বিশ্লেষকদের।

ইউএইচ/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply