ম্যারাডোনার স্মৃতি নিয়ে উড়ন্ত জাদুঘর

|

ম্যারাডোনার স্মৃতি নিয়ে উড়ন্ত জাদুঘর।

চাইলেই কথা বলা যাবে প্রয়াত ফুটবল কিংবদন্তী ডিয়াগো ম্যারাডোনার সঙ্গে। তার কাছে পাঠানো যাবে মনের যেকোনো কথা। তবে সেজন্য হতে হবে বিশেষ এক বিমানের যাত্রী। ম্যারাডোনার বিভিন্ন স্মৃতি নিয়ে সাজানো হয়েছে ট্যাঙ্গো ডি-১০ এস মডেলের সেই বিমান। ১২ সিটের বিশেষ এই বিমানের উদ্বোধন হয়েছে আর্জেন্টিনায়। যা যাবে আসন্ন কাতার বিশ্বকাপে।

আপনি চাইলেই কথা বলতে পারবেন প্রয়াত ফুটবল কিংবদন্তী ডিয়াগো ম্যারাডোনার সঙ্গে। কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা প্রযুক্তির সহায়তায় করতে পারবেন অডিও ও ভিডিও প্রশ্ন। তার কাছে পাঠাতে পারবেন যেকোন বার্তা। এমন অভাবনীয় সব প্যাকেজ মিলবে ম্যারাডোনার স্মৃতির উদ্দেশ্যে বানানো বিশেষ বিমানে। যাকে বলা হচ্ছে উড়ন্ত জাদুঘর…

ট্যাঙ্গো ডি ১০ এস মডেলের বিশেষ বিমানটির উদ্বোধন হয়েছে আর্জেন্টিনার রাজধানী বুয়েন্স আয়ার্সের মোরন বিমানবন্দরে। তৈরি করেছে দেশটির ‘গিভ অ্যান্ড গেট’ গ্রুপ। যে বিমানে দেখানো হবে ম্যারাডোনার ব্যবহার করা জার্সি ও বুট।

বিমানের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ম্যারাডোনাকে নিয়ে বানানো বিশেষ গান ‘ফরএভার ডিয়েগো’ পরিবেশন করেন আর্জেন্টিনার খ্যাতিমান গায়ক সেবাস্তিয়ান গুতিরেজ। বাঁধভাঙা উচ্ছাস প্রকাশ করেছেন ম্যারাডোনা কন্যা দালমা।

ম্যারাডোনার মেয়ে দালমা ম্যারাডোনা বলেন, আমি জানি কাতার যাওয়ার আগে আর্জেন্টিনার বিভিন্ন জায়গায় ভ্রমণ করবে এই বিমান। আমার এবং সমর্থকদের কাছে এটি কেবল একটি বিমানই নয়, বরং দারুণ এক অভিজ্ঞতা।

জানা গেছে, বিমান জুড়ে থাকবে ম্যারাডোনার ক্যারিয়ারের বিশেষ বিশেষ ছবি। ম্যারাডোনার হাতে ৮৬ বিশ্বকাপের ছবি, দুই পাখার একটিতে ম্যারাডোনার বিখ্যাত গোল ‘হ্যান্ড অব গড’ আর অন্যটিতে শতাব্দীর সেরা গোলের মুহূর্ত। বিমানের লেজেও আছে আর্জেন্টাইন কিংবদন্তীর বিশেষ এক ছবি।

আর্জেন্টিনার সাবেক ম্যানেজার সার্জিও বাতিস্তা বলেন, দারুণ এক পরিকল্পনা। ইতিহাসের সেরা ফুটবলারের বিশেষ মুহূর্ত নিয়ে সাজানো হয়েছে বিমানটি। তিন মাস আগে নেয়া পরিকল্পনা আজ বাস্তবে রূপ নিয়েছে। ডিয়েগোর মুখচ্ছবি সবসময়ই আমাদের কাছে বিশেষ কিছু।

১২ সিটের বিশেষ এই বিমানটি এখন চলছে আর্জেন্টিনার বিভিন্ন রুটে। এরপর রওনা হবে কাতার বিশ্বকাপের উদ্দেশ্যে। যেখানে যাত্রী হবেন ম্যারাডোনার ৮৬ বিশ্বকাপের কয়েকজন সতীর্থ।

/এসএইচ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply