আবারও উত্তপ্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

|

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আবারও উত্তেজনা বিরাজ করছে। পূর্বঘোষিত কর্মসূচি নিয়ে ক্যাম্পাসে ঢুকতে চাইলে প্রতিরোধের মুখে পড়েন ছাত্রদল নেতাকর্মীরা। এসময় কয়েকজনকে পিটিয়ে আহত করেছে ছাত্রলীগের কর্মীরা। দুই দলের নেতাকর্মীদের হাতেই লাঠি, হকিস্টিক ও রড দেখা গেছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ বা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কোনো তৎপরতা দেখা যায়নি।

বৃহস্পতিবার (২৬ মে) সকাল থেকেই কার্জন হল ও দোয়েল চত্বর এলাকায় অবস্থান নেয় ছাত্রলীগের শত শত নেতাকর্মী। এসময় হাইকোর্ট এলাকা দিয়ে কিছু ছাত্রদল নেতাকর্মী ক্যাম্পাসের দিকে এগুতে থাকলে ধাওয়া দেয় ছাত্রলীগ। এসময় হাইকোর্ট মাজার মসজিদের সামনে ছাত্রদলের একজন কর্মীকে আহত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা যায়। এই ঘটনার ছবি নিতে গেলে একজন সাংবাদিককেও মারধর করা হয় বলে জানা গেছে।

দুই ছাত্র সংগঠনের মারামারির সময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ বা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনের কোনো তৎপরতা দেখা যায়নি। এই পরিস্থিতিতে ক্যাম্পাসে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

এর আগে পূর্বঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী পৌনে ১২টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল বের করে ছাত্রদল। তাদের কর্মসূচি মোকাবেলা করতে সকাল থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন জায়গায় অবস্থান নিয়েছেন ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা। গত মঙ্গলবার ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের ওপর ছাত্রলীগের হামলার অভিযোগ এনে এই বিক্ষোভ কর্মসূচির ডাক দেয় ছাত্রদল।

প্রসঙ্গত, গতকাল রাজধানীর নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে ঢাবি ছাত্রদলের সদস্যসচিব আমানউল্লাহ আমান বলেন, ছাত্রলীগ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র, আমরাও ছাত্র। অতএব তাদের ক্যাম্পাসে অবস্থানের যতটুকু অধিকার, আমাদেরও ঠিক ততটুকুই অধিকার। তারা আমাদের সাথে যেমন আচরণ করবে আমরাও তাদের সাথে তেমন আচরণই করবো।

/এডব্লিউ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply